ঠিকভাবে ডাল রান্না না করলেই বিপদ!

বিজ্ঞাপন

অনেকেই নানাভাবে ডাল রান্না করেন। ডাল দিয়ে তৈরি করা হয় নানা রকমের পুষ্টিকর ও মুখরোচক খাবার। কিন্তু ডাল তৈরির উপায়ে ভুল হয়ে গেলেই বিপদ হতে পারে!

ডাল বাঙালির অন্যতম প্রধান খাদ্যশস্য। ডাল দিয়ে সহজেই বানানো যায় মজাদার সব পদ। ভর্তা, বড়া, ভুনা, ঘন ডাল, পাতলা ডাল- কতভাবেই না রান্না করা যায়।

আয়রন, ম্যাগনেশিয়াম, পটাশিয়ামের মতো গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টি উপাদানও রয়েছে। এগুলো শরীরের জন্য খুবই উপকারী। বিশেষজ্ঞদের মতে, নিয়মিত ডাল খেলে হৃদরোগের ঝুঁকি কমে। তাই মুগ কিংবা মুসুর ডাল হোক স্বাস্থ্যের উন্নতি হবেই। তবে ঠিকভাবে ডাল রান্না করেন তো! কারণ ডাল তৈরির উপায়ে ভুল হয়ে গেলে বদহজমের সমস্যা দেখা দিতে পারে। ডাল ঠিক মতো রান্না করার উপায় হলো, ডাল ভিজিয়েই রান্না করা।

অনেকেই ডাল না ভিজিয়ে রান্না করেন। এতে শরীরের ক্ষতি হয়। হতে পারে হজমের সমস্যাও। কিন্তু ডাল ভিজিয়ে রাখলে সেই সমস্যা হওয়ার আশঙ্কা নেই। কারণ ভিজিয়ে রেখে ডাল রান্না করলে তা হজমশক্তি বাড়ায়। ডালে থাকা লেকটিনস ও ফাইটেটস নামের উপাদান, যা মূলত গ্যাস-অম্বলের কারণ সেটাও নিষ্ক্রিয় করা সম্ভব, ডাল ভিজিয়ে রাখলে। আর দীর্ঘক্ষণ ডাল ভিজিয়ে রাখলে চটজলদিই রান্না করে ফেলতে পারবেন।

আরো পড়ুন :
ট্রাফিক আইন মেনে চলতে রাণীশংকৈলে সচেতনতামূলক প্রচারণা
কৃষকদলের কেন্দ্রীয় সম্পাদক শফিককে যশোর বিমান বন্দরে সংবর্ধনা

এজন্য একটি পাত্রে ডাল নিয়ে ভালো করে পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। তিন-চারবার পানি পরিবর্তন করে হাত দিয়ে ঘষে ঘষে ডাল ধুয়ে নিন। তারপর একটি পাত্রে রেখে পানি দিয়ে ভিজিয়ে রাখুন।

এক্ষেত্রে মুগ ডাল, মুসুর ডাল কম করে ৮-১২ ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখা উচিত। ছোলা জাতীয় ডাল ভিজিয়ে রাখুন ১২-১৮ ঘণ্টা। তবে এতটা সময় না দিতে পারলে অন্তত আগের দিন রাতে ভিজিয়ে রাখুন। পরের দিন সকালে রান্না করুন।

অক্টোবর ০১.২০২১ at ১১:০২:০০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/সম/রারি