দীর্ঘ ৪০ বছর পরে নিশ্চিন্তপুর গ্রামে ইউপি সদস্য নির্বাচিত

বিজ্ঞাপন

যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার নির্বাসখোলা ইউনিয়নের নিশ্চিন্তপুর গ্রামে দীর্ঘ ৪০ বছর পরে ইউপি সদস্য নির্বাচিত হয়েছে অহেদ আলী। এর আগে ১৯৭৬ সালে একই গ্রামের শামসুল হক ইউপি সদস্য নির্বাচিত হয়েছিল। তারপরে অনেকেই গ্রাম থেকে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করলেও কেউ নির্বাচিত হতে পারেনি। ১১ নভেম্বর ইউপি নির্বাচনে গ্রামের একমাত্র প্রার্থী অহেদ আলী ইউপি সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় গ্রামের মানুষ মহাখুশি হয়েছে। সকলের ভেতরে ফিরেছে স্বস্তি।

নিশ্চিন্তপুর গ্রামের আলহাজ সিরাজুল ইসলাম দিরাজ, রেজাউল ইসলাম, ইসহক আলী, শাহ-আমিরুল কবীর, হাসানুর রহমান, মনিরুজ্জামান মিন্টু, মোশারফ হোসেন, আনোয়ার হোসেন, ডা. ইব্রাহিম হোসেন, মিন্টু মিয়া, আব্দুর রহমান, আব্দুর রউফ, তফিকুল ইসলাম ডিটু, আশরাফুল ইসলাম, বাবুল আক্তার, সাইফুল ইসলাম বিল্লু, মুজিবর রহমান, জাহাঙ্গীর আলম, আহম্মদ আলী, জাকির হোসেন, শফিকুর রহমান, আক্তারুল ইসলাম, সেলিম রেজা, জাহারুল ইসলামসহ অনেকের সাথে কথা হলে তারা জানান, নিশ্চিন্তপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও নির্বাসখোলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক আলমগীর হোসেনের নেতৃত্বে আমরা গ্রামে দুইবার সর্বস্তরের মানুষকে সাথে নিয়ে দলমত নির্বিশেষে এক সাথে বসেছি এবং সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম, এবার গ্রামে ইউপি সদস্য নির্বাচিত করতে হবে।

সবাই চেষ্টা করেছে ফলে আমরা বিজয়ী হয়েছি। আমরা মহাখুশি এবং আগামীতে এই ধারাবাহিকতা ধরে রাখার চেষ্টা করব।

নিশ্চিন্তপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও নির্বাসখোলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক আলমগীর হোসেন জানান, আমাদের গ্রাম এক সময় খুব একতা ছিল। যা কিছু হত সবাই একসাথে মিলেমিশে কাজ করত। কিন্তু ২৫/৩০ বছর গ্রামের মধ্যে ফাটল দেখা দিয়েছে। ফলে গ্রাম থেকে কেউ ভোটে দাঁড়ালে পাশ করতে পারত না।

আরো পড়ুন :
দৌলতপুরে তুচ্ছ ঘটনায় যুবলীগ নেতা বাবু গ্রেপ্তার
ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত, খুলনার সঙ্গে সারাদেশের যোগাযোগ বন্ধ

এবার ইউপি নির্বাচনে অহেদ আলী ইউপি সদস্য পদে নির্বাচন করার আগ্রহ দেখালে আমি গ্রামের মুরুব্বিদের সাথে কথা বলে গ্রামের ঐক্যের ডাক দিয়েছিলাম। সকলের সহযোগিতায় দলমত নির্বিশেষে সবাইকে এক মঞ্চে বসিয়েছিলাম। সকলের সহযোগিতার কারণে আমরা জয় পেয়েছি এবং প্রমাণ হয়েছে, ঐক্য থাকলে অনেক কিছু পরিবর্তন করা সম্ভব।

নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য অহেদ আলী জানান, গ্রামের সকল মানুষের ভালবাসা পেয়েছি। যে কারণে দীর্ঘ ৪০ বছর পরে সকলে আমাকে নির্বাচিত করেছে। এজন্য আমি গ্রামবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞ। আমি চেষ্টা করব গ্রামের সম্মন রক্ষা করতে এবং সবাইকে সাথে নিয়ে একসাথে কাজ করতে।

নভেম্বর ১৪.২০২১ at ২০:১২:০০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/এমআ/রারি