ব্যাংক কর্মকর্তা মওদুদ হত্যার খুনিদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবিতে যশোরে মানববন্ধন কর্মসূচি

ব্যাংক কর্মকর্তা মওদুদ হত্যার খুনিদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবিতে শনিবার সকালে প্রেসক্লাব যশোরের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। ছবি: আয়ুব হোসেন মনা।

অগ্রণী ব্যাংক কর্মকর্তা শেখ মওদুদ আহমদ হত্যার খুনিদের দৃষ্টান্তমুলক সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে যশোরে এক মানববন্ধন ও প্রতিবাদ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে। অগ্রণী ব্যাংক অফিসার সমিতি বাংলাদেশ যশোর আঞ্চলিক পরিষদের উদ্যোগে শনিবার সকাল সাড়ে ১০ টায় প্রেসক্লাব যশোরের সামনে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

মানববন্ধন থেকে হত্যার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদসহ খুনিদের বিরুদ্ধে দ্রুত দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানানো হয়।

উক্ত মানববন্ধন কর্মসূচীতে অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডে যশোরের সহকারি মহব্যাবস্থাপক তাপস কুমার বিশ্বাস, জনতা ব্যাংক লিঃ যশোরের সহকারি মহব্যাবস্থাপক মো. মহিদুল ইসলাম, অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড যশোর অঞ্চলের অফিসার সমিতির সভাপতি মো. কাওসার আলী ও সাধারন সম্পাদক মো. শরিফুল ইসলাম, ঢাকা ব্যাংক লিঃ যশোর শাখার এভিপি মো. কুতুব উদ্দিন, ওয়ান ব্যাংক লিমিটেড যশোর শাখার অফিসার বিক্রম কুমার গুহ, মার্কেন্টাইল ব্যাংক লিমিটেড যশোর শাখার ব্যবস্থাপক মো. মনজুর হোসেনসহ যশোরস্থ বিভিন্ন তফশীলি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহের কর্মকর্তাগণ অংশগ্রহন করেন।

ব্যাংক কর্মকর্তা মওদুদ হত্যার খুনিদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবিতে শনিবার সকালে প্রেসক্লাব যশোরের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। ছবি: আয়ুব হোসেন মনা।

উল্লেখ্য, গত ২১ ফেব্রুয়ারি শনিবার সিলেট নগরীর কোর্ট পয়েন্ট এলাকায় ভাড়া নিয়ে বাকবিতন্ডার জেরে সিএনজি চালক হাছনুরসহ তার কয়েকজন সহযোগী ব্যাংক কর্মকর্তা মওদুদ আহমদকে মারধর করে। গুরুতর আহতবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন তাকে। মৃত্যুর পর হত্যাকান্ডকে সড়ক দুর্ঘটনা বলে প্রচার চালায় পরিবহন শ্রমিকরা।

এ ঘটনায় নিহত মওদুদের বড় ভাই আব্দুল ওয়াদুদ বাদী হয়ে সিলেট সদর উপজেলার জালালাবাদ ইউনিয়নের টুকেরগাঁও পশ্চিমপাড়া গ্রামের আব্দুল হান্নানের ছেলে সিএনজি অটোরিকশা চালক নোমান হাছনুর (২৮) নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

নিহত ব্যাংক কর্মকর্তা শেখ মওদুদ আহমদ অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডের হরিপুর গ্যাসফিল্ড শাখায় কর্মরত ছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহ জেলার গৌরীপুরে।