বুড়িগঞ্জ-পিরব সড়কের বেহালদশা

বিজ্ঞাপন

বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার বুড়িগঞ্জের কানতারা বাসষ্ট্যান্ড থেকে পিরব বন্দর পর্যন্ত সড়কটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। দীর্ঘদিন সংস্কার না করায় সড়কটি মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। পিচ উঠে গিয়ে ছোট-বড় গর্ত, খানাখন্দ আর কর্দমাক্ত হয়ে গেছে সড়কটি। একটু বৃষ্টি হলেই জলাবদ্ধতায় চরম ভোগান্তিতে চলাচল করে পরিবহন। যানবাহন বিকল হয়ে প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনা। দ্রুত সংস্কার না করা হলে যে কোন সময় ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।

সরেজমিনে দেখা গেছে, উপজেলার বুড়িগঞ্জ ইউনিয়নের কানতারা বাসষ্ট্যান্ড থেকে পিরব বন্দর পর্যন্ত প্রায় ৪ কিলোমিটার সড়কটি দীর্ঘদিন সংস্কার না করার কারণে গোটা সড়কটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এই সড়কটি বগুড়া জেলা সদরে যাতায়াতের একমাত্র সড়ক। সড়কটি দিয়ে এলাকার বুড়িগঞ্জ, পিরব, মাঝিহট্ট ইউনিয়নের কয়েক’শ পরিবহনসহ হাজার হাজার পথচারী চলাচল করে।

এ পথেই বগুড়া হতে পিরব বন্দর হয়ে কাহালু, দুপচাঁচীয়া, নওগাঁ, কালাই, জয়পুরহাটসহ বিভিন্ন বন্দরে বাস, ট্রাক, সিএজি, অটোরিক্সা, ভ্যান, মটোর সাইকেলসহ সরেজমিনে দেখা গেছে, উপজেলার বুড়িগঞ্জ ইউনিয়নের কানতারা বাসষ্ট্যান্ড থেকে পিরব বন্দর পর্যন্ত প্রায় ৪ কিলোমিটার সড়কটি দীর্ঘদিন সংস্কার না করার কারণে গোটা সড়কটি একেবারে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এই সড়কটি বগুড়া জেলা সদরে যাতায়াতের একমাত্র সড়ক। সড়কটি দিয়ে এলাকার বুড়িগঞ্জ, পিরব, মাঝিহট্ট ইউনিয়নের কয়েক’শ পরিবহনসহ হাজার হাজার পথচারী চলাচল করে। এ পথেই বগুড়া হতে পিরব বন্দর হয়ে কাহালু, দুপচাঁচীয়া, নওগাঁ, কালাই, জয়পুরহাটসহ বিভিন্ন বন্দরে বাস, ট্রাক, সিএজি, অটোরিক্সা, ভ্যান, মটোর সাইকেলসহ

চাকরিজীবী আবু নছর জানান, আমি প্রতিদিন এই সড়ক দিয়ে অফিসে যাই। কখনো অটোতে আবার কখনো সিএজিতে। জীবনের ঝুঁকি নিয়েই চলাচল করি। রাস্তাটির বেহাল অবস্থার কারণে এবং দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়ায় প্রতিনিয়তই বিভিন্ন ধরনের যানবাহন বিকল হয়ে পড়ে। প্রায়ই বাস-ট্রাক উল্টে হতাহতের ঘটনা ঘটছে। সংশ্লিষ্টদের গুরুত্বহীনতার কারণে করুণ অবস্থা রাস্তাটির।

এলাকার মুদি দোকানি আবুল কালাম বলেন, রাস্তাটি নষ্ট হওয়ার ফলে আমাদের খুব সমস্যা হচ্ছে। দীর্ঘদিন ধরে দোকানের সামনে রাস্তার গর্তে সামান্য বৃষ্টি হলেই পানি জমে থাকে। যানবাহন যাওয়া মাত্রই গর্তের সেই পানি ছিটকে আসে। পনি ছিটকে এসে দোকানের মালামাল নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

তিনি আক্ষেপ করে আরও বলেন, এলাকায় অনেক নেতা আছে, তাদের শুধু ভোটের সময় দেখা যায়। ভোট শেষে তাদের আর দেখা যায় না। আমাদের সমস্যা দেখার কেহ নেই। অনেক নেতা আসে যায়। তাদের কাছে শুধু প্রতিশ্রুতি মেলে। বাস্তবটা উল্টো পেছনের দিকে কেউ ফিরে তাকায়না। সমস্য যে রকম তেমনটায় থেকে যায়, সমাধান আর মেলেনা।

সড়কটির বিষয়ে বগুড়া এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী সাইফুল করির বলেন, রাস্তা সংস্কারের কাজ চলমান আছে, ওই সড়কটির দ্রুত সংস্কার করা হবে।

১৪ অক্টোবার, ২০২০ at ১১:১৩:৪২ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/এসএম/এমএআর