সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড প্রচারে সাবেক এমপি অ্যাড. মনিরের ব্যাপক গণসংযোগ ও মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড প্রচার এবং আগামী দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে নৌকার পক্ষে যশোর-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্নসাধারণ সস্পাদক অ্যাড. মনিরুল ইসলাম মনিরের নেতৃত্বে আনুষ্ঠানিক গণসংযোগ ও মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা হয়েছে। ঝিকরগাছা উপজেলার বাঁকড়া আঞ্চলিক আওয়ামী লীগের (বাঁকড়া, হাজিরবাগ, নির্বাসখোলা ও শংকরপুর ইউনিয়ন) উদ্যোগে এ গণসংযোগ ও মোটরসাইকেল শোভাযাত্রার আয়োজন করা হয়।

মঙ্গলবার বিকালে নির্বাসখোলা ইউনিয়নের বল্লা মাধ্যমিক ও প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে চার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের সমন্বয়ে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, কৃষকলীগ, সেচ্ছাসেবক লীগ, তরুণ লীগ সহ বিভিন্ন সংগঠনের ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতাকর্মীরা প্রায় দেড় হাজার মোটরসাইকেল নিয়ে কয়েক হাজার নেতাকর্মী হাজির হয়। যা দেখে স্থানীয় সাধারণ মানুষকে বলতে শোনা যায়, এ যেন জননেতার ডাকে জনসমুদ্রের সৃষ্টি।

আরো পড়ুন :

> এক বছর চলে গেলেও পূর্বধলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ঠিকাদার নিয়োগ দেয়া সম্ভব হয়নি
> জাবির রসায়ন বিভাগের স্নাতক চূড়ান্ত পরীক্ষায় প্রশ্নপত্রের সাথে উত্তরপত্রও ফাঁস

এই গণসংযোগকে কেন্দ্র করে অ্যাড. মনিরুল ইসলাম মনিরের নিজ এলাকায় ছিল নেতাকর্মীদের মাঝে বাঁধভাঙ্গা উচ্ছাস। মিছিল আর স্লোগানের নগরীতে পরিণত হয় বাঁকড়া এলাকা। “শেখ হাসিনা ভয় নাই, রাজপথ ছাড়ি নাই। মনির ভাই ভয় নাই, আমরা আছি তোমার সাথে” এই স্লোগানে মুখরিত ছিল গোটা এলাকা।

বিকাল সাড়ে পাঁচটায় তিনি এসে পৌছালে নির্বাসখোলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে তাকে ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দকে ফুলের শুভেচ্ছা প্রদান করা হয়। মোটরসাইকেলে বিপুল সংখ্যাক নেতাকর্মীকে সাথে নিয়ে তিনি হাজিরবাগ গ্রামে সাবেক প্রাদেশিক পরিষদ সদস্য, গণপরিষদ সদস্য, স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম জাতীয় সংসদ সদস্য, বঙ্গবন্ধুর সাবাস চেয়ারম্যানখ্যাত, মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক মরহুম আলহাজ্ব আবুল ইসলামের কবর জিয়ারত করেন। পরে নিজে মোটরসাইকেল চালিয়ে শোভাযাত্রা নিয়ে বাঁকড়া বাজার প্রদক্ষিণ করে হাই স্কুল মাঠে মিলিত হয়। ঝড়-বৃষ্টির কারণে তিনি বাজারের মধ্যের গণসংযোগ করতে পারেননি। ফলে বাঁকড়া জে.কে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সামনে উপস্থিত নেতাকর্মীর উদ্দেশ্যে বক্তব্য দিয়ে অনুষ্ঠানের কর্মসূচি শেষ করেন। শংকরপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক শরিফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সাবেক সংসদ অ্যাড. মনিরুল ইসলাম মনির মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরেন। এসময় তিনি আগামী দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা মার্কায় ভোট দেয়ার আহবান জানান। তিনি বলেন, জননেত্রী শেখ হাসনিার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার দেশের চেহারা পাল্টে দিয়েছেন। যা স্বাধীন পরে আর কোন সরকার করতে পারেনি। দেশকে অনুন্নত থেকে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত করেছেন এবং আগামী ২০৪১ সালের মধ্যে একটি উন্নত রাষ্ট্র গড়ার জন্য তিনি নির্রলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি শুধু দেশের না, তিনি সারা বিশ্বের কাছে উন্নয়নের রোল মডেল।

সাবেক এই সংসদ সদস্য আরো বলেন, সংবিধান অনুযায়ী আগামী দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সরকারের উপরে দেশের মানুষ আস্তা রেখেছে। ফলে সরকারের উন্নয়নে ঈর্ষাণীত হয়ে বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিতে ভয় পাচ্ছে। তিনি নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনাকে আবারও ক্ষমতায় আনতে হবে। সেজন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। কারণ ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগকে কেউ পরাজিত করতে পারবে না।

গণসংযোগ ও মোটরসাইকেল শোভাযাত্রায় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম মুকুল, সাধারণ সম্পাদক মুছা মাহমুদ, মুক্তিযোদ্ধাকালীন উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল লতিফ, মুক্তিযোদ্ধা শাহাজান আলী, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রব, জেলা কৃষকলীগ নেতা আকবর হোসেন জাপানী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাস্টার এনামুল কবীর, সাবেক সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মীর বাবরজান বরুণ, সাবেক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আবুল কাশেম, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা আক্তারুজ্জামান আক্তার, শাহ আলম মিন্টু, মুনিরুল ইসলাম মিশর, সাবেক জেলা পরিষদ সদস্য শাহানা আক্তার, হাজিরবাগ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মিন্টু, বাঁকড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুল করিম, সাধারণ সম্পাদক মাস্টার হেলালউদ্দীন খান, হাজিরবাগ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তফা আসাদুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক বজলুর রহমান, নির্বাসখোলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ্ব রুহুল আমিন, সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, শংকরপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধরণ সম্পাদক মাস্টার আদম শফিউল্লাহ, পানিসারা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের, আওয়ামী লীগ নেতা মাস্টার মকবুল হোসেন, লিয়াকত আলী, কাশেম আলী মোড়ল, আতিয়ার রহমান, তোফাজ্ঝেল হোসেন তোফা, এরশাদ আলী, রেজাউল ইসলাম, শফিউদ্দীন, উপজেলা যুবলীগের যুগ্নআহবায়ক ইলিয়াজ মাহমুদ, উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্নআহবায়ক শামসুজ্জোহা লোটাস, যুবলীগ নেতা আলমগীর বাসার, লিন্টু বিশ্বাস, মিলন হোসেন সাদ্দাম, মিঠু আহমেদ, রকিবুল হাসান মিন্টু, আসাদুজ্জামান আসাদ, নুরুল হক গাজী, প্রমূখ।

জুন ১৩, ২০২৩ at ২১:০৩:০০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/এআ/ইর