খুলনার রেলওয়ে কিল্ডার গার্টেনে পাখি সংরক্ষণে বনবিবি’র সভা ও গাছে মাটির পাত্র স্থাপন

খুলনার প্রাণকেন্দ্রে পাখি সংরক্ষণে গণসচেতনতা বাড়ানোর লক্ষ্যে পাখি শিকার রোধে উদ্বুদ্ধকরণ সভা ও পাখির আবাসস্থল রক্ষায় গাছে মাটির পাত্র স্থাপন করা হয়েছে। পাইকগাছার পরিবেশবাদী স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বনবিবি’র উদ্যেগে খুলনা রেলওয়ে কিল্ডারগার্টেন স্কুলে পাখি বাসার জন্য গাছে মাটির পাত্র স্থাপন ও সচেতনতামূলক সভা বনবিবি’র সভাপতি সাংবাদিক প্রকাশ ঘোষ বিধিান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

গণসচেতনতামূলক সভা ও মাটির স্থাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ স্কাউটস খুলনা রেলওয়ে অঞ্চলের আঞ্চলিক উপ -কমিশনার মো:ফজলুল বারী মল্লিক। বিশেষ অতিথি ছিলেন, সাবেক ব্যাংকার বিকাশেন্দু সরকার, সপ্তদ্বীপা সাহিত্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মাধুরী রানী সাধু। উপস্থিত ছিলেন, পঞ্চনন সরকার, অসিম রায়, কওসার আলী মোড়ল, রোজী সিদ্দিকী, ঐশী আক্তার লিমা, ফারজানা আক্তার ময়না, হাসনা খাতুন সুমাইয়া, সাংবাদিক ইমদাদুল হক, পরিবেশ কর্মি কার্তিক মণ্ডল প্রমুখ।

আরো পড়ুন :
> তিন দিনেও সনাক্ত হয়নি চাল পাচারের মুলহোতা কে?
> ঘোড়াঘাটে গাঁজার ব্যাগ ফেলে পালিয়ে গেল মাদক ব্যবসায়ী খালেক

পাখি সহ সকল বন্যপ্রাণী শিকার, হত্যা, লালন-পালন, ক্রয়-বিক্রয় বন্য প্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইন- ২০১২, অনুযায়ী দন্ডনীয় অপরাধ সম্বলিত সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে,শিকারী ও অসাধুদের সতর্ক করতে পাখির বাসার জন্য মাটির পাত্র স্থাপন করা হয়। বন্যপ্রাণী সংরক্ষণে বাংলাদেশ সরকার বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইন-২০১২ পাস করেছে। এ আইনে পাখি শিকার, হত্যা, আটক ও কেনা বেচা দন্ডনীয় অপরাধ।পাখি হত্যা করলে যার সর্বোচ্চ শাস্তি ২ বছর কারাদণ্ড এবং ২ লাখ টাকা জরিমানা।

উল্লেখ্য, পাখি বাঁচাও, প্রকৃতি বাঁচাও এ শ্লোগানকে সামনে রেখে পাখির নিরাপদ আবাসস্থল নিশ্চিতের লক্ষে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বনবিবি উপজেলায় ২০১৬ সাল থেকে কাজ করে যাচ্ছে।পাখির অভায়রণ্য তৈরির লক্ষে পাখির সুরক্ষা, নিরাপদ আবাসস্থল নিশ্চিতের জন্য উপজেলায় বিভিন্ন ইউনিয়ানে গাছে গাছে পাখির বাসার জন্য মাটির পাত্র, ঝুড়ি, সচেতনতামূলক লিফলেট বিতারণ, উদ্বুদ্ধকরণ সভা ও বিলবোর্ড স্থাপন কার্যক্রম অব্যহত রয়েছে।

জুন ১৩, ২০২৩ at ১৮:৩৫:০০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/ইহ/ইর