বাজেটে যা কিছুতে খুশি সাধারণ মানুষ

বিস্তারিত প্রথম কমেন্টে…

বলা হচ্ছে- প্রস্তাবিত ২০২৩-২৪ অর্থবছরের বাজেট নিয়ে ভোক্তা, সাধারণ মানুষ, ব্যবসায়ী, বিনিয়োগকারী, ক্ষুদ্র সঞ্চয়কারীসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ কেউই খুশি নয়। ট্যাক্স রিটার্নের জন্য ২ হাজার টাকা কর আদায়ের আলোচনার ভিড়ে চাপা পড়ে গেছে প্রস্তাবিত বাজেটের অন্য ইতিবাচক দিকগুলো।

অর্থনীতিবিদরা মনে করছেন, অনেক সেবা ও রাষ্ট্রীয় সুযোগ-সুবিধার জন্য টিন (টিআইএন) সার্টিফিকেট প্রয়োজন হয়। কারো এটি থাকলে তিনি আর্থিকভাবে সচ্ছল কিংবা তার নির্দিষ্ট আয় আছে এমনটি ভাবার কারণ নেই। প্রস্তাবিত বাজেটে এ ব্যাপারে যে প্রস্তাব করা হয়েছে এর ফলে অনেকেই ট্যাক্স রিটার্ন জমা দেয়া থেকে বিরত থাকবেন। কারো যদি আয় না-ও থাকে, তাকেও এখন কর দিতে হবে। বিষয়টি পুরোপুরি সাংঘর্ষিক। বাজেটে এমন প্রস্তাব নাগরিক স্বার্থের ক্ষেত্রেও স্ববিরোধী বলে মনে করছেন অর্থনীতিবিদরা।

আরো পড়ুন :

> বাজেটে কেউ খুশি নয়
> জবিতে রেজিস্ট্রার নিয়োগে নিয়ম অমান্য

তবে বাজেট বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ‘অল্পে তুষ্ট’ নিম্নবিত্ত কিংবা মধ্যবিত্তের জীবনযাত্রায় নতুন কিছু আশাও জোগাচ্ছে এবারের বাজেট। যেমন- একটি পরিবার একাধিক গাড়ি ব্যবহারের কারণে যানজট বাড়ার অভিযোগ রয়েছে অনেক আগে থেকেই। এবারের বাজেটে একাধিক গাড়ি থাকলেই দিতে হবে কার্বন কর। তাই চাইলেই কেউ আর একটির বেশি গাড়ি কিনতে পারবেন না। এছাড়া নতুন বাজেটে নিত্যপ্রয়োজনীয় বেশ কিছু পণ্যই নাগালে থাকবে সাধারণ মানুষের। যেমন দাম কমেছে গরুর মাংসের, কৃষি যন্ত্রপাতিতেও মিলবে স্বস্তি, এমনকি বিভিন্ন জটিল রোগের ওষুধও আর কিনতে হবে না বেশি দামে।

বাজেট ঘোষণা আসতেই দাম কমেছে এলপিজি সিলিন্ডারের। ১৬১ টাকা কমিয়ে ভোক্তা পর্যায়ে ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ১ হাজার ৭৪ টাকা। বাজেটে নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্তের নাগালের বাইরে চলে যাওয়া মাংসের দাম কমানোর প্রস্তাবও এসেছে। দাম কমার তালিকায় রয়েছে মিষ্টিজাতীয় পণ্যও। আদা, পেঁয়াজ ও রসুনসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্যও কিছুটা কমবে। এবারের বাজেটে ওষুধ আর মেডিকেল সরঞ্জাম উৎপাদনের পাশাপাশি অ্যান্টি-ক্যানসার ও অ্যান্টি-ডায়াবেটিস ওষুধের কাঁচামাল আমদানি শুল্ক মওকুফের আওতায় আনবে সরকার। ফলে দাম কমবে জটিল সব রোগের ওষুধের দাম।

পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বা জনস্বাস্থ্যে স্যানিটারি ন্যাপকিন ও ডায়াপারের দামও থাকবে সাধারণ মানুষের নাগালে। সাবান-শ্যাম্পুতে মিলবে ভ্যাট সুবিধা। একই সঙ্গে দেশীয় বৈদ্যুতিক এলইডি বাল্ব ও সুইচ-সকেটের দামও কমবে। শিক্ষার হার ও শিক্ষায় আগ্রহ বাড়াতে বাজেটে দেশের ১০ হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয়ে খেলার মাঠ করারও প্রস্তাব এসেছে। শিক্ষা খাতে বাজেটও বাড়ানো হয়েছে।

প্রস্তাবিত বাজেটে করমুক্ত আয়ের সীমা বাড়িয়ে করা হয়েছে সাড়ে ৩ লাখ টাকা, যা আগে ছিল ৩ লাখ। অর্থাৎ কারো বার্ষিক আয় সাড়ে ৩ লাখ টাকার বেশি হলেই দিতে হবে আয়কর; অন্যথায় নয়। করসীমা বাড়ায় এবার কর দিতে হবে না অনেককেই।

জুন ০৮, ২০২৩ at ১১:২৪:০০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/দেপ্র/ইর