চাকরিতে আবেদনের বয়স ৩৫ বছর করার দাবি রওশনের

ছবি- সংগৃহীত।

চাকরিতে আবেদনের বয়সসীমা ৩০ থেকে বাড়িয়ে ৩৫ বছর করার দাবি জানিয়েছে জাতীয় পার্টির প্রধান পৃষ্টপোষক ও জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ। রবিবার (২৮ মে) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ আহ্বান জানান তিনি।

চাকরির বয়সের সীমা ৩৫ বছর করা এখন সময়ের দাবি উল্লেখ করে রওশন বলেন, পৃথিবীর ১৬২টি দেশে চাকরির আবেদনের সময়সীমা ৩৫ থেকে ৫৯ বছর পর্যন্ত। বয়সই বড় কথা নয় যোগ্যতাই বড় কথা। এই সময়সীমা পৃথিবীর অন্যান্য দেশের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। লেখাপড়া শেষ করতেই ২৮ বছর অতিবাহিত হয়ে যায়, কত কষ্টে লেখাপড়া করে চাকরি না পেয়ে ৩০ বছর চলে যাওয়ার পর মনের দুঃখে হতাশ হয়ে সার্টিফিকেট জালিয়ে ফেলে দেয় যা অত্যান্ত দুঃখের এবং আমাদের অন্তরাত্মাকে স্পর্শ করে।

আরো পড়ুন :
> ‘বিএনপি আ. লীগকে আক্রমণকারী হিসেবে দেখাতে মরিয়া’
> খেলাপি ঋণ ১ লাখ ৩১ হাজার ৬২০ কোটি টাকা

বিরোধী দলীয় নেতা বলেন, এই সরকারের আমলে শিক্ষা ও উচ্চ শিক্ষার হার বেড়েছে। ছেলে মেয়েদের চাকরি হয়েছে কিন্তু বেকারত্ব আরো হু হু করে বেড়ে চলেছে। এই বেকারত্ব দূর করতে হলে শিক্ষার্থীদের গতানুগতিক ধারায় শিক্ষিত করলে চলবে না। কারিগরি শিক্ষার উপর সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। শুধুমাত্র প্রাইভেট সেক্টরে ডিপ্লোমা কোর্স দিয়ে শিক্ষিত করলে হবে না। কারিগরি শিক্ষার জন্য উচ্চতর শিক্ষার দ্বার উন্মোচন করতে হবে। প্রতিটি সরকারি-বেসরকারি কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে অবিলম্বে কারিগরি শিক্ষার বিষয়গুলো চালু করা হোক।

তিনি আরো বলেন, শুধুমাত্র বিসিএস পরীক্ষা দিয়ে বিবেচনা করা যায় না। কারণ একটি বিসিএস পরীক্ষায় মাত্র ৪ থেকে ৫ হাজার ছেলে-মেয়েদের চাকরি হয়। আর বেকার যুবকদের সংখ্যা আছে ২৬ লাখের উপরে। তাদের কথা বিবেচনা করে তাদেরকে অবশ্যই যত তাড়াতাড়ি সম্ভব কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে হবে।

মে ২৮, ২০২৩ at ২০:৩২:০০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/দেপ্র/ইর