বঙ্গবন্ধু আমাদের চিরন্তন প্রেরণার উৎস: সাবেক এমপি অ্যাড. মনির

যশোর-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্নসাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মনিরুল ইসলাম মনির বলেছেন, বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা ছিল বঙ্গবন্ধুর হৃদয়ের লালিত স্বপ্ন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের চিরন্তন প্রেরণার উৎস। তাঁর কর্ম ও আদর্শ চিরকাল আমাদের মাঝে বেঁচে থাকবে।

বঙ্গবন্ধু কেবল বাঙালি জাতির নন, তিনি বিশ্বে নির্যাতিত, নিপীড়িত ও শোষিত মানুষের স্বাধীনতার প্রতীক, মুক্তির দূত। তাই আসুন, আমরা সবাই মিলে জাতির পিতার অসা¤প্রদায়িক, ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত ও সুখী-সমৃদ্ধ স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলি। আজকের দিনে এই হোক আমাদের অঙ্গীকার।

শুক্রবার বিকালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩ তম জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সাবেক এই সংসদ সদস্য আরো বলেন, বাংলাদেশ স্বাধীন হলেও ১৯৭৫ সালে এ জাতির ভাগ্যে নেমে আসে আরেকটি কালরাত্রি। ওই বছরের ১৫ আগস্ট বিশ্বাসঘাতকদের নির্মম বুলেটে সপরিবারে নিহত হন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এরপর অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলকারী স্বাধীন বাংলাদেশে পাকিস্তানি ভাবধারার মূল্যবোধের বিস্তার ঘটানোর পাঁয়তারা চালায়।

ইতিহাসের পাতা থেকে বঙ্গবন্ধুর নাম মুছে ফেলতে শুরু করে নানা ষড়যন্ত্র। কিন্তু তার সংগ্রাম ও গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকার জন্য তা মুছে ফেলতে পারেনি। বাংলা ও বাঙালি যতদিন থাকবে, বঙ্গবন্ধু একইভাবে প্রজ্বলিত হবেন প্রতিটি বাঙালি হৃদয়ে, মুক্তিকামী ও শান্তিকামীর হৃদয়ে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম মুকুলের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক মুছা মাহমুদ, উপজেলা সাবেক ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাস্টার এনামুল কবীর, সাবেক সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মীর বাবরজান বরুণ, সাবেক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আবুল কাশেম, সাবেক কমিশনার শরিফুল ইসলাম, নির্বাসখোলা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ন-আহবায়ক ইলিয়াস মাহমুদ, মহিলা যুবলীগের নাসরিন খান বিথি, তরুণ লীগের সভাপতি মনিরুল ইসলাম শিপলু, যুবলীগ নেতা ফয়েজ হাসান মজনু, ছাত্রনেতা স্বদেশ রেজা।

অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ন-আহবায়ক শামসুজ্জোহা লোটাস।

উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার শাজাহান আলী, মুক্তযোদ্ধা আব্দুর রব, সাবেক জেলা পরিষদ সদস্য ইকবাল আহমেদ রবি, সাবেক মহিলা জেলা পরিষদ সদস্য শাহানা আক্তার, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা মাজহারুল ইসলাম প্রিন্স, জেলা কৃষক লীগ নেতা আকবর হোসেন জাপানী, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা অশোক দত্ত, আক্তারুজ্জামান আক্তার, শাহ আলম মিন্টু, মুনিরুল ইসলাম মিশর, বাঁকড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাস্টার হেলাল উদ্দিন খান, গদখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল জব্বার, উপজেলা যুবলীগ নেতা আলমগীর বাসার সহ উপজেলা ও বিভিন্ন ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ।