বিশ্ব ব্যাংককে সহায়তা বাড়াতে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান

কোভিড-১৯ মহামারি, যুদ্ধ এবং জলবায়ু পরিবর্তনে নেতিবাচক প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত বাংলাদেশের মতো উন্নয়নশীল দেশগুলোকে এসব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বিশ্ব ব্যাংকসহ আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোকে সহায়তা জোরদার করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার (২৩ জানুয়ারি) সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন বিশ্বব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (অপারেশনস্) অ্যাক্সেল ভ্যান ট্রটসেনবার্গ। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘কোভিড-১৯ মহামারি এবং রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের ফলে বিদ্যমান সংকট মোকাবেলায় বাংলাদেশের মতো উন্নয়নশীল দেশগুলোকে সহায়তা করুন। বিশ্বব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অ্যাক্সেল ভ্যান ট্রটসেনবাগ আজ সকালে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর কার্যালয়ে (পিএমও) সৌজন্য সাক্ষাত করতে এলে তিনি একথা বলেন।

বিশ্বব্যাংকের এমডি বাংলাদেশের উন্নয়নকে ‘অবিশ্বাস্য’ হিসেবে বর্ণনা করেন এবং উন্নয়নের ধারায় ঢাকার পাশে থাকার আশ্বাস দেন। নিজস্ব তহবিল থেকে উপকূলে সবুজ বেস্টনি, টেকসই বাড়ি নির্মাণসহ ক্ষতিগ্রস্ত মানুষগুলোকে বিভিন্ন সহায়তার মাধ্যমে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রচেষ্টার কথা উল্লেখ করেন তিনি।

বর্তমান বিশ্ব পরিস্থিতির কথা তুলে ধরে বিশ্বব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (অপারেশন্স) অ্যাক্সেল ভ্যান ট্রটসেনবার্গ বলেন, বাংলাদেশসহ উন্নয়নশীল দেশগুলোর সামনে চ্যালেঞ্জ আছে। চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় এসব দেশকে নতুন প্রজন্মের জন্য কর্মসংস্থান সৃষ্টির ওপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

আরো পড়ুন:
>শিক্ষার্থীর মৃত্যু বিমানবন্দর সড়ক অবরোধ-বিক্ষোভ
>রাণীশংকৈলে ৩০০ কম্বল ও ৬৫ টি কোরআন শরীফ বিতরণ

বিশ্ব ব্যাংক বাংলাদেশকে সহায়তা অব্যহত রাখবে জানিয়ে অ্যাক্সেল ভ্যান ট্রটসেনবার্গ বলেন, ১৯৭২ সালের পর থেকে বিশ্ব ব্যাংক বাংলাদেশের পাশে আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে। এসময় শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের উন্নয়নের প্রশংসা করে অ্যাক্সেল ভ্যান ট্রটসেনবার্গ বলেন, বিগত সময়ে বাংলাদেশের ব্যাপক উন্নয়ন অবিশ্বাস্য।

প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. গওহর রিজভী, প্রধানমন্ত্রীর অ্যাম্বাসেডর অ্যাট লার্জ মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. তোফাজ্জল হোসেন মিয়া, সিনিয়র অর্থ সচিব ফাতিমা ইয়াসমিন এসময় উপস্থিত ছিলেন।

জানুয়ারি ২৩.২০২৩ at ১৮:৩৫:০০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/এসআর