প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে স্বাক্ষর জালিয়াতির অভিযোগ

নিয়ম শৃঙ্খলা কে হার মানিয়ে প্রধান শিক্ষক ক্ষমতার দাপটে অনিয়ম ও দূর্নীতির আখরায় পরিনত করেছেন বজরা পূর্বপাড়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কে। দূনীতির এই অভিযোগ উঠেছে প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলমের বিরূদ্ধে। সুত্র অনুয়ায়ি জাহাঙ্গীর আলম প্রধান শিক্ষকের পদ পাওয়ার পর থেকে নিয়োগ বানিজ্যসহ বিভিন্ন অনিয়মে ভরপুর করে তুলেছেন বিদ্যালয়টিকে।

অভিযোগে জানাগেছে, চিলমারী উপজেলার পার্শবর্তী উলিপুরের বজরা পূর্বপাড়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ক্ষমতার অপব্যবহারে হর হারমেশাই প্রতিনিয়ত আশ্রয় নেন নানা দূর্নীতির। নিয়ম নীতিকে তোয়াক্কা না করে ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি মজিবর রহমান ও কমিটির সদস্য গনের সাক্ষর জালিয়াতি করে সহকারী বিধি নিষেধ অমান্য করে ইচ্ছে মতো গোপন চুক্তির মাধ্যমে লক্ষ্য টাকা হাতিয়ে নিয়োগ বানিজ্যে নেমে পরেন তিনি।

শুধু তাই নয় ভুয়া শিক্ষার্থীর তালিকা দেখিয়ে পকেটে ঢুকাচ্ছেন উপবৃত্তির টাকাও। ১৯৯৩ সালে ঝাড়–দার পদে নিয়োগ প্রাপ্ত আব্দুল মতিনকে তার পদের কার্য দায়িত্ব বুঝে না দিয়ে। ঝাড়ুদার মতিনের পদটি খালি দেখানোর চেষ্টা চালানো সহ উক্ত পদে নতুন নিয়োগের পায়তারা করছেন প্রধান শিক্ষক।

বিদ্যালয়টির সাবেক মেনেজিং কমিটির সভাপতি মজিবর রহমান খোভ প্রকাশ করে বলেন, প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম অনিয়ম ও দূনীতির আশ্রয় নিয়ে আমাদের স্বাক্ষর জাল করে নিয়োগ বানিজ্য সহ দূনীতির আখরায় পরিনত করেছেন বিদ্যালয়টি।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলমের সাথে মুঠো ফোনে কথা হলে, তিনি সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন। বিদ্যালয়ের সব ধরনের কার্যক্রম নিয়ম নীতি মেনেই করা হচ্ছে।

এপ্রিল ২৫,২০২২ at ১৫:৫৮:০০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/ফহ/রারি