ষষ্ঠ ধাপের ইউপি নির্বাচন: রাত পোহালেই ভোট যুদ্ধ

রাত পোহালেই অনুষ্ঠিত হবে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। স্থানীয় সরকারের গুরুত্বপূর্ণ এই স্তরের প্রতিনিধি নির্বাচনে সকাল আট টায় শুরু হবে ভোট গ্রহণ। কোনও বিরতি ছাড়াই চলবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। নির্বাচনকে ঘিরে নানা আশঙ্কা থাকলেও নির্বাচন কমিশন ইতোমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতি সামাল দিতে নেওয়া হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থা। ভোটগ্রহণের দিন সংশ্লিষ্ট নির্বাচনি এলাকায় সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

নির্বাচন কমিশনার আঁখি সরকার জানিয়েছে, ষষ্ঠ ধাপে বীরগঞ্জ উপজেলার ২টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যানসহ তিনটি পদে ১৯৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৯ জন, সাধারণ সদস্য পদে ৯৫ জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৯১ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

আরো পড়ুন:
কে এই বিশ্বের কনিষ্ঠ ধনকুবেরস?
পাত্র নেই, যে গ্রামের সব নারী সুন্দরী ও অবিবাহিত

ইউনিয়ন পরিষদে এবার দ্বিতীয় চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীকে ভোট হচ্ছে। ষষ্ঠ ধাপে চেয়ারম্যান প্রার্থী রয়েছেন আওয়ামী লীগের ২ জন ও সতন্ত্র প্রার্থী ৪ জন, জাতীয় পার্র্টির ১ জন, বাংলাদেশ ইসলামী আন্দোলনের ২জন।

নির্বাচন কমিশনার আরও বলেছেন, ভোটকেন্দ্রগুলো আগের রাতে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হবে। উপজেলার ২টি ইউনিয়ন এ ইভিএম ভোট গ্রহন করা হবে। কোনো ধরনের সমস্যা যেন সৃষ্টি না হয় সেজন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের কঠোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। ভোটের আগের রাতে কোনও স্থানে অনিয়ম ঘটলে সেই এলাকার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এবং ভোটকেন্দ্রের দায়িত্বে নিয়োজিত পুলিশ কর্মকর্তাকে দায়ী করা হবে। তাদের গাফিলতি পাওয়া গেলে তাৎক্ষণিকভাবে প্রত্যাহারসহ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জানুয়ারি ৩০.২০২২ at ১৬:০৮:০০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/পরজ/জআ