ইসি গঠন বিল পাস, সার্চ কমিটিতে থাকছে নারী

বহুল প্রতীক্ষিত  ও স্বাধীনতার দীর্ঘ ৫০ বছর পর নির্বাচন কমিশন গঠনে বিল জাতীয় সংসদে পাস হয়েছে। সার্চ কমিটিতে রাষ্ট্রপতির মনোনীত দুই বিশিষ্ট নাগরিকের মধ্যে একজন নারী রাখার বিধান যুক্ত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) সংসদে প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অন্য চার কমিশনার নিয়োগ ২০২২ বিলটি উত্থাপন করা হয়।

এর ওপর প্রবল বিরোধিতা করেন বিএনপি ও জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্যরা। তারা বিলটি তড়িঘড়ি করে পাস না করে এটি আরও বিস্তারিত আলোচনার জন্য যাচাই বাছাই কমিটিতে পাঠানোর দাবি জানান।

বক্তব্যে বিরোধী সদস্যরা বলেন, সংবিধানের ১১৮ ধারার সঙ্গে ৪৮ (৩) সাংঘর্ষিক। কেননা, ৪৮(৩) ধারায় বলা আছে রাষ্ট্রপতি শুধু মাত্র প্রধানমন্ত্রী ও প্রধান বিচারপতি নিয়োগ করতে পারবেন, তাই সিইসি ও অন্য কমিশনারদের নিয়োগের বিষয়ে রাষ্ট্রপতি নিশ্চয়ই প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করবেন। তাই এটি রাজনৈতিক পক্ষপাতদুষ্ট হবে। তারা ইসি গঠনে সার্চ কমিটিতে এমপিদের রাখার সুপারিশ করেন। তারা বিরে কিছু সংশোধনীরও প্রস্তাব করেন।

আরো পড়ুন:
যশোরে বেনাপোল পাটবাড়ি আশ্রমে ‘সিদ্ধবৃক্ষ‘ মাধবীলতা
লালপুরে উপজেলা আ.লীগের ভার্চুয়াল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

সার্চ কমিটিতে ওয়ার্কাস পার্টির রাশেদ খান মেনন দুজন বিশিষ্ট নাগরিকের মধ্যে একজন নারী রাখার প্রস্তাব করেছিলেন। পরে আইনমন্ত্রী সেই প্রস্তাব গ্রহণে সম্মতি দিলে, তা ভোটে গ্রহণ করে সংসদ। পরে আইনমন্ত্রী বিরোধীদের কয়েকটি ছোটখাটো সংশোধনি গ্রহণ করে বিলটি পাস করার জন্য সংসদে তোলেন এবং ধ্বনি ভোটে সংসদে বিলটি পাস হয়। বিলে সার্চ কমিটি কতৃক বিগত দুটি ইসি গঠনেও বৈধতা দেয়া হয়েছে।

এবারে এটি রাষ্ট্রপতি স্বাক্ষরের মাধ্যমে আইনে পরিণত হবে এবং রাষ্ট্রপতি দ্রুত আইনানুযায়ী, সার্চ কমিটি গঠন করে তার মাধ্যমে প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অন্য চার কমিশনার নিয়োগ করবেন। যদিও তড়িঘড়ি করে আইনটি করার জন্য বিএনপি, জাপা, ওযাকার্স পার্টিসহ রাজৈনতিক দল ও সুশীল সমাজ এটিকে সরকারের ইচ্ছামাফিক কমিশন বলে মন্তব্য করেছেন।

জানুয়ারি ২৭.২০২২ at ১৯:৪৩:০০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/ভক/জআ