সিলেটে উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ইনজেকশন পুশ করায় এক প্রবাসীর মৃত্যু

সিলেটে উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ইনজেকশন পুশ করায় এক প্রবাসীর মৃত্যু হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারী সকালে। সকাল থেকে রোগীর মুত্যুও পর স্বজনরা হাসপাতালে মরদেহ নিয়ে বিক্ষোভ করে সিলেটের উইমেন্সে মেডিকেল কলেজে।

নিহত রোগীর ভাগনা জানান, বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারী) ভোর রাত ৪টার দিকে আব্দুল আহাদের বুকে ব্যথায় ধরে। পরে তাকে নিয়ে উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আসা হয়। তখন তিনি বেডে ভালোই ছিল। ডাক্তার প্রেসক্রিপশন লিখে দেন, আমরা ওষুধ নিয়ে আসি। পরবর্তীতে একটা ইনজেকশন মারা হয়। ইনজেকশন মারার সাথে সাথে নাকে-মুখে রক্তক্ষরণ হয়ে তিনি মারা যান।

আরো পড়ুন:
শেষ রক্ষা হলো না শার্শায় ছাত্রী ধর্ষণের পলাতক আসামি ধর্ষক বজলুর
আগামীকাল শনিবার চৌগাছা রিপোর্টার্স ক্লাব নির্বাচন

তিনি আরও বলেন, আমরা কর্তৃপক্ষের কাছে যাই। কিন্তু কয়েক ঘন্টায়ও তারা কোনো আশ্বাস আমাদেরকে দেয়নি। কোন ডাক্তার চিকিৎসা করেছেন, তার নামও আমাদেরকে জানায়নি। আমরা বলেছি, ডাক্তারের নামটা বলেন, আমরা বুঝি যে কেন এমনটা ঘটলো। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বারবার বলছে, ‘সরি, সরি, ভুল হয়ে গেছে’। পরবর্তীতে আমরা প্রশাসন নিয়ে কর্তৃপক্ষের সাথে বসেছি। তখন তারা আর দুঃখিত বলেনি, টালবাহনা দিয়ে ধামাচাপা দিতে চাইছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নিয়ে আসে।

মারা যাওয়া আব্দুল আহাদ (৪০) সিলেট শহরতলির আখালিয়া নতুন বাজাওেংষধস মোহাম্মদিয়া আবাসিক এলাকায়র পংকি মিয়ার ছেলে। তিনি সৌদি আরব প্রবাসী ছিলেন। ব্যক্তি জীবনে তিনি এক ছেলে ও এক মেয়ের বাব ছিলেন।

জানুয়ারি ২৭.২০২২ at ১৭:৩৫:০০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/আকর/জআ