কোটচাঁদপুরে সড়কে গাছ কেটে আবারো ডাকাতির চেষ্টা, অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন পরিবহন যাত্রীরা!

বিজ্ঞাপন

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর মহাসড়কে গাছ কেটে আবারো ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার ভোরে পৌর কাশিপুর ডিগ্রী কলেজের পাশে এ ঘটনা ঘটে। এতে একটি ট্রাক ড্রাইভারকে অস্ত্রের মূখে জিম্মি করে টাকা পয়সা ছিনিয়ে নিলেও অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছেন ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা পূর্বাশা পরিবহনের একটি এসি বাসের যাত্রী সাধারণ। বাসের সুপার ভাইজার ৯৯৯ এ কল দিলে কোটচাঁদপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছালে ডাকাত দল পালিয়ে যায়। পরে তাদেরকে উদ্ধার করে যানচলাচল স্বাভাবিক করা হয়।

পূর্বাশা পরিবহনের সুপার ভাইজার তমাল হোসেন জানান, বুধবার রাত ১০ দিকে ঢাকা গাবতলী থেকে পূর্বাশা পরিবহনের একটি এসি বাস দর্শনার উদ্দ্যেশে ছেড়ে আসি। বৃহস্পতিবার ভোর ৫ টার দিকে কালিগঞ্জ-কোটচাঁদপুর মহাসড়কের কাশিপুর পৌর কলেজের অদূরে পৌছালে সামনে একটি মেহগনি গাছ কেটে সড়কে পড়ে থাকতে দেখি। এসময় ডাকাত দল একটি ট্রাকের গতিরোধ করে । তমাল হোসেন বলেন, আমাদের পরিবহনটি ঘটনাস্থলে যাওয়া মাত্রই মাথায় হেলমেট পরিহিত ৭/৮ জনের সংঘবদ্ধ ডাকাত দল বাসের গ্লাস খোলার চেষ্টা চালায়।

আরো পড়ুন :
গাবতলীতে রাধা গোবিন্দের লীলা কীর্তন অধিবেশন
জাবিতে দেশবরেণ্য নাট্যচার্যের প্রয়াণ দিবস পালিত

এসময় বাসের সুপার ভাইজার তমাল ৯৯৯ এ কল দিলে কোটচাঁদপুর থানা পুলিশের হাইওয়ের একটি টিম ঘটনাস্থলে পৌছায়। পরে সেখানে কোটচাঁদপুর থানা পুলিশের আরো একটি টিম আসে। এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সংঘবদ্ধ ডাকাত দল পালিয়ে যায়। এতে অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পান পরিবহন যাত্রীরা। এতোপূর্বে ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসে কোটচাঁদপুর থানা থেকে প্রায় ১ কিলোমিটার অদূরে একইস্থানে গাছ কেটে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এসময় ডাকাত দলের হামলায় রবিউল ইসলাম নামে স্থানীয় এক ব্যবসায়ী নিহত হন। থানা পার্শ্ববর্তী এলাকায় প্রায়ই ডাকাতির ঘটনায় পরিবহন মালিক সহ সাধারণ মানুষের মাঝে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

এব্যাপারে মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মঈন উদ্দিন ঘটনাল সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, গাছ কেটে ডাকাতির চেষ্টা কালে পরিবহনের একজন ৯৯৯ এ ফোন দিলে কন্ট্রোল রুম থেকে থানার ডিউটি অফিসারকে জানানো হয়। পরে সড়কে টহলরহত পুলিশ সদস্যদের কে দ্রুত ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়। ডাকাত দল পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাতি সংঘটিত করতে পারেনি।

জানুয়ারি ১৪.২০২১ at ২০:৫৮:০০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/এসএমরাউ/রারি