নারী ও তরুণরা যেন কেন্দ্রে যেতে পারে, এ ভোটগুলো আমার: আইভী

বিজ্ঞাপন

নারী ও তরুণ ভোটাররা যেন কেন্দ্রে যেতে পারেন। কারণ এ ভোটগুলো আমার। কোনো ধরনের সহিংসতা যেন না হয়। এ জন্য নির্বাচন কমিশনকে আগেই জানানো হয়েছে। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) নিজ বাসার সামনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন নৌকার মেয়র প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী।

আইভী বলেন, ভোট কেন্দ্রে সহিংসতা না হলে আমার বিজয় সুনিশ্চিত। নির্বাচনে আমি জিতবই, ইনশাআল্লাহ। তবে আমার বিজয় সুনিশ্চিত জেনে কেউ যদি ভোট কেন্দ্রে সহিংসতা করে সেটি মোটেও ঠিক হবে না। এক্ষেত্রে আমি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে অনুরোধ করব তারা যেন বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখে।

এদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী তৈমূর আলম খন্দকার বলেন, সুষ্ঠু ভোট হলে এবং ভোটাররা ভোট দেওয়ার সুযোগ পেলে আমি নারায়ণগঞ্জের সিটি মেয়র হিসেবে নির্বাচিত হব।

রোববার (১৬ জানুয়ারি) নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) দিনভর গণসংযোগে ব্যস্ত সময় কাটান হেভিওয়েট দুই প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী ও খন্দকার তৈমূর আলম। তারা দুজনই জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী।

সিটি করপোরেশনের ২৭টি ওয়ার্ডজুড়ে এখন উৎসবের আমেজ। শেষ মুহূর্তে দুয়ারে দুয়ারে গিয়ে ভোট প্রার্থনায় ব্যস্ত প্রার্থীরা দিচ্ছেন নানা প্রতিশ্রুতি। প্রায় ২০ লাখ মানুষের এ সিটিতে ভোটার ৫ লাখ ১৭ হাজার ৩৫৭ জন। নারী ভোটার-২ লাখ ৫৭ হাজার ৫১৯ আর পুরুষ ভোটার-২ লাখ ৫৯ হাজার ৮৩৪ জন।

মেয়র পদে তৈমূর ও আইভি ছাড়াও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আরও পাঁচজন। ভোটাররা দুইবারের মেয়রকে আবারও চান নাকি নতুন কোনো নগরপিতা বেছে নেবেন তাই এখন দেখার অপেক্ষা।

উল্লেখ্য, তৃতীয় দফায় নির্বাচনের মুখোমুখি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন। ২০১১ সালের ৫ মে সিদ্ধিরগঞ্জ ও কদমরসুল পৌরসভা বিলুপ্ত করে একত্রে আত্মপ্রকাশ ঘটে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন হিসেবে।

প্রথম ভোট অনুষ্ঠিত হয় ২০১১ সালের ৩০ অক্টোবর। প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত শামীম ওসমানকে ১ লাখেরও বেশি ভোটে পরাজিত করে ইতিহাসে প্রথম নারী মেয়র নির্বাচিত হন সেলিনা হায়াৎ আইভী। পরে ২০১৬ সালে প্রথম দলীয় প্রতীক পান আইভী। সেবার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত সাখাওয়াত হোসেনকে ৭৯ হাজার ভোটে পরাজিত করে টানা দ্বিতীয়বার মেয়র তিনি।

জানুয়ারি ১৪.২০২২ at ১৬:১৪:০০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/সনি/জআ