প্রতিবাদ জানিয়ে হত্যার হুমকি পেলো এমবাপ্পে

ফরাসি স্ট্রাইকার কিলিয়ান এমবাপ্পে।
বিজ্ঞাপন

এমন তারকারও শত্রু আছে, সেটা কে জানত? খোদ নিজ শহর বন্ডিতে হত্যার হুমকি পেয়েছেন এমবাপ্পে। ফ্রান্স ফুটবলের চলতি সময়ের সবচেয়ে বড় তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পে। মাত্র ১৯ বছর বয়সে বিশ্বকাপ জিতেছেন এ ফুটবলার। দেশের হয়ে কদিন আগেই জিতেছেন নেশনস লিগ। মাত্র ২৩ বছর বয়সে দেশটির শিশু-কিশোরদের অনুপ্রেরণাও হয়ে উঠেছেন তিনি।

এক শিশুকে অনলাইনে নিগ্রহ করার প্রতিবাদ জানিয়ে এমবাপ্পে টুইট করেছিলেন। সে ঘটনার পরই হত্যার হুমকি পান এমবাপ্পে। নিজের বেড়ে ওঠার শহর বন্ডিতে এমবাপ্পের বিশাল এক ম্যুরাল আছে। সংবাদমাধ্যম লে প্যারিসিয়েন জানিয়েছে, দারুণ সে ম্যুরালে গ্রাফিতি একে বার্তা দেওয়া হয়েছে, এমবাপ্পে, তোমার দিন ঘনিয়ে এসেছে।

মৌসুমের শুরুতে পিএসজি ছাড়তে চেয়েছিলেন এমবাপ্পে। কিন্তু কামিলের মতো পিএসজির অনেক সমর্থকই তাদের নায়ককে আরও বহুদিন দলে দেখতে চান। তবে এই চমৎকার বার্তাও অনেকের পছন্দ হয়নি। এ টুইটের নিচে অনেক বাজে মন্তব্য দেখা গেছে। আট বছরের এই শিশুকে উদ্দেশ্য করে অনেকে কটূক্তি করেছেন। সেটা এমবাপ্পের নজরে আসে। টুইটারে কাল তাই কামিলের পক্ষে মুখ খুলেছেন এমবাপ্পে।

আরো পড়ুন:
ভোট চোরদের জনগণ রেহাই দেয় না: প্রধানমন্ত্রী
মণিরামপুরে এতিমখানায় উপজেলা ছাত্রলীগের কম্বল বিতরন

এমবাপ্পে পোস্ট করে বলেছেন, আমার ছোট্ট কামিলে, তোমাকেও নতুন বছরের শুভেচ্ছা। যেভাবে লড়ে যাচ্ছ, লড়ে যাও। তুমি আমাদের জীবন নিয়ে শিক্ষা দিচ্ছ। একটি শিশুর প্রতি এমন বিদ্বেষপূর্ণ মন্তব্য…আমরা তো তলানিতে পৌঁছে যাচ্ছি, আমাদের বিবেক জাগ্রত হোক।

এক শিশুর ভিডিও দিয়ে ঘটনার শুরু। কামিলে নামের এক ছোট্ট মেয়ে এমবাপ্পের প্রতি সে ভিডিওতে ভালোবাসা জানিয়েছে। দুরারোগ্য রোগে আক্রান্ত কামিলে ভিডিওতে এমবাপ্পেকে তার পছন্দের ক্লাবে রয়ে যাওয়ার অনুরোধ জানিয়ে বলেছে, প্যারিস ও ফ্রান্সে আমার মতো লাখো সমর্থক আছে, যারা আপনাকে অনেক ভালোবাসে। অনুগ্রহ করে প্যারিস সেন্ট জার্মেইয়ে থেকে যান এবং আরও বহুদিন আমাদের স্বপ্ন দেখান। কিলিয়ান, আশা করি পিএসজি ও ফ্রান্স দলে দারুণ এক বছর কাটাবেন।

সে বার্তার পরই ম্যুরালে ওই বার্তা লিখে গেছেন কেউ। তবে এর সঙ্গে রাজনৈতিক ইন্ধনও দেখছেন কেউ কেউ। এই মাসের শেষে বন্ডির মেয়র নির্বাচনের প্রার্থী হয়েছেন সিলভাইন থমাসিন। এমবাপ্পের সঙ্গে থমাসিনকেও ম্যুরালে হুমকি দেওয়া হয়েছে। কিছুদিন থমাসিনকে বেশ কয়েকবার এমবাপ্পের সঙ্গে দেখা গেছে। এমবাপ্পের সঙ্গে তার শৈশবের ক্লাব বন্ডির অনুশীলন সেন্টার দেখতে গিয়েছিলেন থমাসিন। সে ঘটনাকে প্রতিপক্ষ রাজনৈতিক প্রচারণা বলেছিল।

জানুয়ারি ১১.২০২২ at ১৯:৩২:০০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/সনি/জআ