নতুন মনিটর কেনার আগে যেসব বিষয় জানা জরুরি

বিজ্ঞাপন

আমরা অনেক সময় রেজুলেশন বা অন্য কিছু বিবেচনা না করেই মনিটর কিনে ফেলি। অথচ মনিটর কেনার আগে আপনাকে বেশ কিছু বিষয় জানতে হবে। কম্পিউটারের পিসির পাশাপাশি মনিটরও খুব গুরুত্বপূর্ণ।

কম্পিউটার মনিটরগুলো প্রায়শই সবচেয়ে উপেক্ষিত পেরিফেরাল, যা আপনার কম্পিউটারের সঙ্গেই সংযুক্ত থাকে। ব্যবহারকারী কম্পিউটার মনিটর এর দিকে তাকিয়ে যে পরিমাণ সময় ব্যয় করে থাকেন, তাই মনিটর কেনার ভুল সিদ্ধান্ত কাজকে কম দক্ষ করে তুলতে পারে ও আপনার দৃষ্টিশক্তি এবং ঘাড়ের জন্য সম্ভাব্য ক্ষতিকারকও হতে পারে।

যেমন আকার নেবেন: মনিটর কেনার পূর্বে আপনি অবশ্যই বড় মনিটরই বেঁছে নিতে চান। একটি মনিটর কেনার সময় মনিটর এর সাইজ নিয়ে মাথা ঘামায় না এমন লোকের সংখ্যা একেবারে ০ শতাংশ এর কাছাকাছি রয়েছে। সবাই বড় মনিটরকেই প্রাধান্য দিয়ে থাকেন। আপনার মনিটর কেনার আগে একটু ভেবে দেখা উচিত যে, আপনি ওই মনিটর কি কাজের জন্যে ব্যবহার করবেন। আপনি যদি মনিটর দিয়ে ভিডিও এডিটিং করতে চান কিংবা গ্রাফিক ডিজাইন এর কাজ করতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই একটু বড় মনিটর কিনতে হবে।

১৫ ইঞ্চি সিআরটি মনিটর এর দিন থেকে অনেক কিছু পরিবর্তিত হয়েছে। আজকাল কর্মক্ষেত্রের মনিটরগুলো ২৭ ইঞ্চি ও এমনকি বড় দেখাও অস্বাভাবিক কিছু নয়! বড় মনিটরগুলো আপনাকে উইন্ডোগুলোকে ছোট না করে বা বন্ধ না করে কাজ করার জন্য আরও ব্যবহারযোগ্য স্থান করে দেয়, আপনার কাজের গতি ও কাজকে আরও দক্ষ করে তোলে।

আরো পড়ুন:
ক্রিকইনফোর বর্ষসেরা টি-টোয়েন্টিতে ফিজ, ওয়ানডে দলে তিন বাংলাদেশি
মাটিরাঙ্গায় সমাজসেবা দিবসে ১শত ১৫ জন পেল অনুদানের অর্থ

রেজুলেশন কেমন নিবেন: আমরা মূলত একটি মনিটরের সাইজ ও রেজুলেশন এই দুটিকে এক করে ফেলি। মনে রাখতে হবে যে, একটি মনিটরের সাইজ ও রেজুলেশন কিন্তু এক জিনিস নয়। রেজুলেশন হলো একটি মনিটরকে একটি ছবি প্রদর্শনের পিক্সেলের সংখ্যা। সাধারণভাবে মনিটরের রেজুলেশনে ২টি সংখ্যা থাকে। উপলব্ধ সবচেয়ে সাধারণ রেজুলেশনন হলো ১৯২০x১০৮০। এটি ১৯২০ পিক্সেল অনুভূমিকভাবে ১০৮০ পিক্সেল উলম্বভাবে উপস্থাপন করে।

উচ্চতর রেজুলেশন আপনাকে মনিটরে আরও তথ্য প্রদর্শন করতে দেয় ও উচ্চতর রেজুলেশন আরও তীক্ষ্ম হয়। এটি আসলে উল্লেখ করার মতো যে, মনিটরের রেজুলেশন যতো বেশি হবে, স্ক্রিনের সবকিছুই ততো ছোট হবে। উইন্ডোজ কিছু সামঞ্জস্যসহ সেই উপাদানগুলিকে স্কেল করার ক্ষেত্রে একটি শালীন কাজও করে।

ভিডিও ইনপুট: সাধারণ ভিডিও ইনপুটগুলির মধ্যে রয়েছে VGA, HDMI, DVI ও ডিসপ্লেপোর্ট। সাধারণত, আপনার কম্পিউটারে যে কোনো সংযোগকারীর সঙ্গে মেলানো যায় এমন মনিটর আপনাকেই বেছে নিতে হবে, যদিও অ্যাডাপ্টার ও তারগুলি অন্য যে কোনো ইনপুটের জন্য উপলব্ধ। মনে রাখবেন যে, সমস্ত সংযোগকারী একই কর্মক্ষমতার অধিকারী নন।

বাজেট কেমন হবে: অনেক বৈশিষ্ট্য ছাড়া একটি মৌলিক ১৯২০x১০৮০ ২৭-ইঞ্চি মনিটর ১৪,৫০০ টাকার মতো পড়বে। স্পেকট্রামের অন্য প্রান্তে, সামঞ্জস্যযোগ্য উচ্চতাসহ ৪ক রেজুলেশনসহ একটি প্রিমিয়াম ৩২-ইঞ্চি কিংবা বড় মনিটর ২৯,০০০+ খরচও হতে পারে। সাধারণত বড় স্ক্রিন ও উচ্চতর রেজুলেশন ডিসপ্লের দাম বাড়িয়ে দেয়। সাধারণত, রেজুলেশন স্ক্রিনের আকার ব্যতীত দামের উপরও সর্বাধিক প্রভাব ফেলে।

জানুয়ারী ০২.২০২২ at ১৬:৪০:০০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/সনি/জআ