ধর্ষণ মামলার আসামি জেলে বসে পেলেন নৌকা

বিজ্ঞাপন

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার কোলা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন  ধর্ষণ মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া মীর লিয়াকত আলী। বর্তমানে তিনি জেলহাজতে রয়েছেন।

মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) চতুর্থ ধাপের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করা হয়।

২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসে কোলা ইউপি চেয়ারম্যান মীর লিয়াকত আলীর খাসকামরায় বোলতলী স্কুলের ৮ম শ্রেণির এক ছাত্রী ধর্ষিত করা হয়। যার ভিডিও ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করে ওই ধর্ষক। যিনি ইউনিয়নটির একজন কর্মচারী।

এ ঘটনার ৯ মাস পর ২০১৮ সালের জুলাই মাসে ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে দুইজনকে আসামি করে সিরাজদিখান থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেন। ধর্ষকের সঙ্গে চেয়ারম্যানকেও আসামি করা হয়। ওই মামলায় আদালতে হাজিরা দিতে গেলে আদালত চেয়ারম্যান মীর লিয়াকত আলীকে জেলহাজতে পাঠান।

আরো পড়ুন:
রাজধানীতে গাড়ির ধাক্কায় নটরডেম কলেজ ছাত্র নিহত
যেএনে পারি মুর ভোট মুই দিয়ুম : আদিবাসী ভোটাররা

চেয়ারম্যানের পরিবার জানায়, স্থানীয় বিরোধের কারণে মামলাটিতে চেয়ারম্যানকেও আসামি করা হয়। তবে বিচারে অবশ্যই এই সত্য স্পষ্ট হবে। এলাকার জনপ্রিয় এবং ভালো মানুষ হিসাবে পরিচিত ব্যক্তিকে মিথ্যাভাবে মামলায় জড়িয়েছে তারও বিচার হবে।

জানা যায়, মীর লিয়াকত আলী সিরাজদিখান উপজেলার কোলা ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি।

এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ মো. লুৎফর রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তিনি বর্তমানে জেলে আছেন বলে আমরা অবগত আছি। তার পক্ষে তার ছেলে চতুর্থ ধাপের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে আবেদন জমা দেন। আমরা অন্যান্যদের সঙ্গে তার নামের তালিকাটিও কেন্দ্রে পাঠাই। সেখানেও আমরা উল্লেখ করে দেই তিনি বর্তমানে জেলে আছেন।

নভেম্বর ২৪.২০২১ at ১৬:২৭:০০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/সনি/জআ