নিয়মিত গাজর খাওয়ার উপকারিতা

বিজ্ঞাপন

শীতের সবজির মধ্যে গাজর অন্যতম। কাঁচা গাজর, সালাদ, জুস বা তরকারিতেও খাওয়া যায়। গাজর অত্যন্ত পুষ্টিকর, সুস্বাদু ও আঁশসমৃদ্ধ শীতকালীন সবজি। তবে শীতকালে গাজর খাওয়ার প্রবণতা অনেক বেশি লক্ষ করা যায়। এ সবজিতে আছে বিটা ক্যারোটিন, যা শরীরের জন্য খুবই উপকারী। চোখ, ত্বক, চুল ও শরীরের নানা অঙ্গের জন্য গাজরের উপকারিতা বলে শেষ করা যাবে না।

এ ছাড়া গাজরে ভিটামিন ‘এ’ থাকে। ভিটামিন ‘এ’-এর অভাব জেরোফথালমিয়া হতে পারে, যা চোখের একটি রোগ। গাজর খেলে এই আশঙ্কা কমে। গাজর খেলে কোলন ক্যানসারের ঝুঁকি কমে। ২০১৪ সালে গবেষণা করা হয় ৮৯৩ জনক নিয়ে। তাতেই মিলেছে এই তথ্য।

আরো পড়ুন:
সারাদেশে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি, সর্বনিম্ন তাপমাত্রা তেঁতুলিয়ায়
শিবচরে তুচ্ছ ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যানসহ ৫জন আহত

গাজরে প্রাকৃতিক শর্করা থাকে। ১০ শতাংশ কার্বোহাইড্রেট থাকে। তার ৫০ শতাংশ চিনি। গাজরে থাকে কম ক্যালোরি। উচ্চ ফাইবার যুক্ত গাজরে চিনির পরিমাণ কম থাকায় তা ডায়াবেটিস আক্রান্তদের ক্ষেত্রে ক্ষতিকারক নয়। এতে থাকে ফাইবার এবং পটাসিয়াম। পটাশিয়াম রক্ত সঞ্চালন প্রক্তিয়া স্বাভাবিক রাখে। ফলে, রক্ত জমাট বাঁধে না সহজে। তাই উচ্চ রক্তচাপও নিয়ন্ত্রণ থাকে। গাজরে থাকে ভিটামিন সি, যা অনাক্রম্যতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

লিভারে জমে থাকা পিত্ত ও চর্বি পরিষ্কার করতেও সাহায্য করে গাজর। স্ট্রোকের প্রবণতা কমায়-হাভার্ড ইউনিভার্সিটির তথ্যানুসারে, যারা সপ্তাহে ৫টি কিংবা তার বেশি খায় তাদের স্ট্রোকের আশঙ্কা অন্যদের তুলনায় অনেকটাই কম হয়। গাজরে ভিটামিন ‘কে’ এবং অল্প পরিমাণে ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস থাকে, যা হাড় মজবুত করে। অস্টিওপরোসিস প্রতিরোধে সাহায্য করতে পারে। তবে মনে রাখতে হবে, ভিটামিন ‘এ’ অতিরিক্ত খেলে তা শরীরের পক্ষে ক্ষতিকারক। এ ছাড়া অতিরিক্ত ভিটামিন ‘এ’ ত্বকে হালকা কমলা রঙের কারণ হতে পারে।

নভেম্বর ১৫.২০২১ at ১০:৩৫:০০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/সনি/জআ