থানচিতে রথ বির্সজনে সমাপ্তি হলো প্রবারণা পূর্ণিমার উৎসব

বিজ্ঞাপন

বান্দরবানে থানচিতে বৌদ্ধ ধর্মালম্বীদের মাহা. ওয়াগ্যোয়াই পোয়ে. (প্রবারণা পূর্ণিমা) উৎসবের মহা রথ (রাথা.) মোমবাতি প্রজ্জ্বলনের পূঁজা করার শেষে সাংঙ্গু নদীতে ভাসানো দেখতে দুই পাড়ে ছিল শতশত নর-নারীর উপচে পড়া ভিড়। সাংঙ্গু নদীতে ভাসছে দৃষ্টিনন্দন রথ (রাথা.) ময়ুর। বাঁশ, বেত, কাঠ এবং রঙিন কাগজ দিয়ে অপূর্ব কারুকাজে তৈরি নদীতে ভাসমান এসব রথ (রাথা.) ময়ুর চলছে যেন বাঁধভাঙা আনন্দ। এই রথযাত্রা উৎসবে শুধু মারমারাই নয়, অন্যান্য সম্প্রদায়ের লোকজনও আনন্দ-উদ্দীপনা নিয়ে অংশগ্রহণ করেন। ফলে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির মিলন মেলায় পরিণত ঘটে।

অন্যদিকে মারমা তরুন তরুনীদের মুখে মুখে “ছংরাসিহ্ ওয়াগ্যোয়াই লাহ্ রাথা. পোয়ে. লাগাইমে” (অর্থাৎ ওয়াগ্যোয়াই এসেছে, এসো সবাই মিলেমিশে রথযাত্রায় যাই)। মারমা এই গানের সুরের মুর্ছনায় মুখরিত থানচিতে পল্লীগুলো। প্রবারণা পূর্ণিমার রথ যাত্রা উৎসবে মারমা তরুন তরুনীরা এই গানটি গেয়ে রথ টেনে নিয়ে যান।

রবিবার (২৪ অক্টোবর) সকালে থানচি মগক হেডম্যান পাড়া বৌদ্ধ বিহার প্রাঙ্গনে রথ যাত্রা আরম্ভে দেশের সকলে মঙ্গল সূত্রপাঠ ও প্রার্থনা করে বেলা ২টায় সময়ে তরুন তরুনী দলসহ সকল শ্রেণির মানুষের ভিড়ে (রাথা.) রথে মোমবাতি প্রজ্জলন করে নেচে গেয়ে টেনে টেনে প্রধান সড়ক, উপজেলা বাজারসহ বিভিন্ন স্থান প্রদক্ষিণ শেষে সাংঙ্গু নদীতে রথটি বিসর্জনে মাধ্যমে সমাপ্তি ঘটে বৌদ্ধ ধর্মালম্বীদের প্রবারণা পূর্ণিমার উৎসব।

এদিকে প্রবারণা পূর্ণিমার রথযাত্রা উৎসবটি ঘিরে থানচি’র বিভিন্ন স্থানের ছিল উৎসবের মিলনমেলা। উপজেলা বৌদ্ধ বিহারগুলো থেকে শতাধিক রংবেরংঙ্গে ফানুস বাতির উড়িয়ে ভগবান বুদ্ধের (চুলা মনি জাদি) উদ্দেশ্যের উৎসর্গ করেন বৌদ্ধ ধর্মালম্বীরা। এই প্রবারণা পূর্নিমার উৎসবের বাধ ভাঙ্গা জোসনার আলোতে শতশত ফানুস বাতির ঝিলিক ও আতশবাজিতে উজ্জল রাতের আকাশ।

আরো পড়ুন:
আফ্রিদিকে ছাড়িয়ে বিশ্বসেরা সাকিব আল হাসান
নতুন ফিচার যোগ হলো মেসেঞ্জারে

এবারে থানচি উপজেলাতে ফানুস বাতি উড়ানো, পিঠা তৈরী, হাজার প্রদীপ প্রজ্জলন, বিহারে বিহারে পূজা অর্চনা, সাংঙ্গু নদীতে পদ্ম ফুল ভাসানোসহ নানান আয়োজনে ওয়াগ্যোয়াই পোয়ে. (প্রবারণা পূর্ণিমা) উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। আনন্দে দল বেঁধে নেচে গেয়ে উঠে মারমা সম্প্রদায়ের শিশু-কিশোর, তরুন তরুনী ও যুবকরা। এটি বৌদ্ধ ধর্মালম্বীদের অন্যতম প্রবারণা পূর্ণিমা উৎসবের আজ শেষ দিন ছিল।

পরিশেষে রথযাত্রায় একই দিনের সন্ধ্যায় থানচি মুক্ত মঞ্চের উপজেলা ওয়াগ্যোয়াই পোয়ে. উৎসব উদযাপন কমিটির সভাপতি থুইমং প্রু মারমা সভাপতিত্বে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান থোয়াইহ্লা মং মারমা। বিশেষ অতিথি হিসাবে আরো উপস্থিত আছেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আতাউল গনি ওসমানী, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান চসাথোয়াই মারমা (পকশৈ), মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নুমেপ্রু মারমা, থানচি থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুদ্বীপ রায় প্রমূখ। এছাড়াও আইন শৃঙ্খলা বাহিনী, তরুন তরুনীসহ বিভিন্ন গ্রাম থেকে আগত মানুষ ও অন্যান্য সম্প্রদায়ের লোকজন, গনমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

অক্টোবর  ২৪.২০২১ at ২১:০৫:০০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/চথঅম/জআ