তৃতীয়বারের মতো কানাডার প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন ট্রুডো

ভোট দেয়ার পর জাস্টিন ট্রুডো। ছবি : ওয়াশিংটন পোস্ট।
বিজ্ঞাপন

কানাডায় টানা তৃতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন লিবারেল পার্টির জাস্টিন ট্রুডো। বিরোধী কনজারভেটিভ পার্টির সঙ্গে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতার লড়াই জিতে তিনি ক্ষমতায় আসছেন। দেশটির প্রায় সবগুলো সংবাদমাধ্যম থেকেই এমন খবর জানা গেছে।

মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) কানাডায় ই-মেইল ব্যালট গণনা শুরু হবে।

এর আগে সোমবার রাতে কানাডার সংবাদমাধ্যম সিবিসি নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, কানাডার ৪৪ তম সাধারণ নির্বাচনে বেশিরভাগ আসনেই জয় পেয়েছে লিবারেল পার্টির প্রার্থীরা। তবে একক সরকার গঠনের জন্য দলটির ১৭০ আসনে জয় নিশ্চিত করতে হবে। সংসদের ৩৩৮টি আসনে ভোটার সংখ্যা ২ কোটি ৭০ লাখ।

সিবিসির হিসাব অনুযায়ী সোমবার পর্যন্ত কানাডার ১৫২টি আসনে লিবারেল পার্টির প্রার্থীরা জয় পেয়েছে কিংবা এগিয়ে রয়েছেন।

ব্রিটিশ বার্তাসংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, বর্তমান সরকারে ট্রুডোর জনপ্রিয়তা নেই। ফলে সরকার পরিচালনা করতে গিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে অন্যান্য রাজনৈতিক দলের ওপর নির্ভর করতে হয় তাকে। তবে জনমত জরিপে লিবারেল পার্টি এগিয়ে থাকলেও বিরোধী নেতা এরিন ও’টুলের কনজারভেটিভ পার্টির কঠিন চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হয়েছেন তিনি।

জানা গেছে, গত মাসে নির্বাচনের আগে পরিচালিত এক মতামত জরিপের ফলাফলে জাস্টিন ট্রুডোকেই এগিয়ে রাখা হয়। সেই সময়ে তিনি বলেছিলেন, চলমান করোনা মহামারি পরিস্থিতি মোকাবিলায় ভোটারদের মতামত জানার উদ্দেশ্যেই এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। কারণ এটি ঝুঁকিপূর্ণ সিদ্ধান্ত। বিশেষ করে নির্বাচনে তার দলের পক্ষে বড় ব্যবধান তৈরি করতে না পারা অস্বস্তিকর হতে পারে।

অন্টারিওর নায়াগ্রা জলপ্রপাত এলাকায় এক ভাষণে জাস্টিন ট্রুডো বলেন, নিরবচ্ছিন্নভাবে টিকা কার্যক্রম পরিচালনার জন্য স্বচ্ছ ও দৃঢ় নেতৃত্ব প্রয়োজন, আর সেটাই আমরা করছি।

সম্প্রতি জাস্টিন ট্রুডোর সরকার সবার জন্য করোনা টিকা নিশ্চিতের জোর প্রচারণা চালিয়েছে। তবে কনজারভেটিভ পার্টির নেতা এরিন ও’টুল দ্রুত করোনার পরীক্ষায় অগ্রাধিকার দেন।

আরো পড়ুন:
বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের সম্প্রচারে বিঘ্ন ঘটতে পারে
লালপুরে অস্ত্রসহ ৭জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী আটক

রোববার নির্বাচনী প্রচারণার শেষ দিনে অন্টারিওর নায়াগ্রা জলপ্রপাত এলাকায় এক ভাষণে জাস্টিন ট্রুডো বলেন, নিরবচ্ছিন্নভাবে টিকা কার্যক্রম পরিচালনার জন্য স্বচ্ছ ও দৃঢ় নেতৃত্ব প্রয়োজন, আর সেটাই আমরা করছি।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে কানাডায় প্রথমবারের মতো সরকার গঠন করেন ট্রুডো। সেই সময়ে তিনি জো ক্লার্কের পর কানাডার দ্বিতীয় কনিষ্ঠতম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে রেকর্ড গড়েন। জাস্টিন ট্রুডো দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী পিয়েরে ট্রুডোর সন্তান।

সেপ্টেম্বর ২১.২০২১ at ১৮:১২:০০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/ভক/জআ