সেই দরবার শরীফ থেকে একজোড়া হরিণ উদ্ধার

আলোচিত দরবার শরীফ থেকে উদ্ধার করা হরিণ। ছবি: দেশ দর্পণ

কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার কল্যাণপুরে অবস্থিত ‘দরবার-এ রেসালাতে মোজাদ্দেদীয়া’ নামক একটি দরবার শরীফে চারদিন আগে সেখানকার খাদেম রাশেদ আলীকে (৩০) পিটিয়ে হত্যার পর এবার সেই আলোচিত দরবার শরীফ থেকে একজোড়া হরিণ উদ্ধার করেছে স্থানীয় প্রশাসন। পরে হরিণ দুটি বন বিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। গোপন সূত্রের খবরের ভিত্তিতে বুধবার (৯ জুন) সন্ধ্যায় দরবার শরীফের ভেতর থেকে অবৈধভাবে সংরক্ষণ করা হরিণ দুটি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় শের খান (৩৮) নামে এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে।

জানা যায়, গোপন সূত্রের খবরের ভিত্তিতে বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শারমিন আক্তার, দৌলতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাসির উদ্দিন ও বন বিভাগের কর্মকর্তারা দৌলতপুর উপজেলার কল্যাণপুরে ‘দরবার-এ রেসালাতে মোজাদ্দেদীয়া’ দরবার শরীফে অভিযান চালান। এ সময় দরবার শরীফের ভেতরে লোহার রেলিং দিয়ে ঘেরা একটি টিনের ছাউনির নিচে দুটি হরিণ দেখতে পান তারা। পরে হরিণ দুটি সেখান থেকে উদ্ধার করে বন বিভাগের কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

বন বিভাগের কর্মকর্তা আবু বক্কর সিদ্দিক জানান, কল্যাণপুর দরবার শরীফের ভেতরে অবৈধভাবে হরিণ লালন পালন করা হচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় সেখানে অভিযান চালানো হয়। উদ্ধার করা হয় দুটি হরিণ। এ ঘটনায় বন্যপ্রাণি সংরক্ষণ আইন ২০১৭ মোতাবেক দরবার শরীফ থেকে হরিণ দেখভালকারী শের খানকে আটক করা হয়। তাকে দৌলতপুর থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে। উদ্ধার করা হরিণ দুটি ভেড়ামারা বন বিভাগে নেয়া হয়েছে।

দৌলতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাসির উদ্দিন বলেন, হরিণ দুটি উদ্ধারের জন্য বন বিভাগের কর্মকর্তারা আমার কাছে সহযোগিতা চাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে সঙ্গে নিয়ে দরবার শরীফে অভিযান চালানো হয়। আমরা সেখান থেকে হরিণ দুটি উদ্ধার করে বন বিভাগের কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করেছি। ওই দরবারের পীর সৈয়দ তাছের আহম্মেদ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় দায়ের করা মামলার পর থেকে পলাতক রয়েছেন।

কল্যাণপুরি পীরের দরবার শরীফের প্রধান ফটক। ফাইল ছবি

দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শারমিন আক্তার বলেন, দরবার শরীফের মধ্যে অবৈধভাবে হরিণ সংরক্ষণ করার খবর জানিয়ে তা উদ্ধারে বন বিভাগের কর্মকর্তারা আমাদের সহযোগিতা চান। আমরা সেখানে গিয়ে দুটি হরিণ উদ্ধার করতে সক্ষম হই। পরে হরিণ দুটি বন বিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হয়। তারাই এ ব্যাপারে পরবর্তী পদক্ষেপ নেবেন।

এর আগে গত ৬ জুন দৌলতপুর উপজেলার কল্যাণপুরে ‘দরবার-এ রেসালাতে মোজাদ্দেদীয়া দরবার শরীফে সেখানকার খাদেম রাশেদ আলীকে মোবাইল চুরির অপবাদ দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করা হয়া। ওই ঘটনায় নিহত রাশেদের বাবা সাবেক ইউপি মেম্বার আব্দুর রাজ্জাক বাদী হয়ে দরবার শরীফের পীর সৈয়দ তাছের আহম্মেদসহ ১০ জনের নাম উল্লেখ করে দৌলতপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় পুলিশ ৬ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। পীর সৈয়দ তাছের আহম্মেদসহ মামলার অপর আসামিরা পলাতক রয়েছেন। রাশেদ হত্যাকাণ্ডের পর দৌলতপুরের সবচেয়ে বড় এই দরবার শরীফটি নতুন করে আলোচনায় উঠে আসে।

উল্লেখ্য, কল্যাণপুরি পীর সৈয়দ তাছের আহম্মেদের দরবার শরীফে বছরে তিনবার বড় মাহফিলের আয়োজন করা হয়। দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে শত শত বাস নিয়ে বিপুল সংখ্যক ভক্ত-অনুসারী সেখানে সমবেত হন। সেখানে যাতায়াত রয়েছে প্রভাবশালী ব্যক্তিদেরও। ফলে করোনাকালেও তাদের মাহফিল বন্ধ রাখতে পারেনি প্রশাসন। বিশাল এলাকাজুড়ে গড়ে ওঠা এই দরবার শরীফকে ঘিরে এলাকার মানুষের মাঝে কৌতূহলের শেষ নেই। বর্তমানে নিরাপত্তাকর্মীরা ছাড়া আর কাউকে সেখানে পাওয়া যাচ্ছে না।