বাংলাদেশ লঙ্কানদের ২৫৮ রানের লক্ষ্য দিল

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আজ রবিবার ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৫১তম হাফসেঞ্চুরি তুলে নেয়ার পথে বাউন্ডারি হাঁকান টাইগার অধিনায়ক তামিম ইকবাল।
বিজ্ঞাপন

প্রথম ওয়ানডে ম্যাচে আজ রবিবার শ্রীলঙ্কাকে ২৫৮ রানের লক্ষ্য দিয়েছে বাংলাদেশ। এদিন ৬ উইকেট খুইয়ে তামিম, মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহর হাফসেঞ্চুরিতে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ২৫৭ রান তুলে টাইগাররা। তবে আজ ব্যাট হাতে দুর্দান্ত খেলেছেন মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহ।

দলীয় ৯৯ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে বেশ চাপে পড়েছিল টাইগাররা। সেই চাপ থেকে দলকে উদ্ধার করেন মুশফিকুর রহিম এবং মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। পঞ্চম উইকেট জুটিতে এ দুই ব্যাটসম্যান ১০৯ রানের পার্টনারশিপ গড়ে তোলেন। ওয়ানডে ক্যারিয়ারের অষ্টম সেঞ্চুরির সম্ভাবনা জাগিয়ে তুলে ব্যক্তিগত ৮৪ রানে আউট হন তিনি। ৮৭ বলে ৮৪ রানের ইনিংস খেলার পথে ৪টি চার এবং একটি ছক্কা হাঁকান তিনি।

এর আগে শ্রীলংকার বিপক্ষে আজ প্রথম ম্যাচে টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন অধিনায়ক তামিম ইকবাল। এরপর সফরকারীদের বিপক্ষে ওপেনিংয়ে ব্যাট করতে নামেন লিটন দাস ও তামিম। কিন্তু শুরুতেই ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারের তৃতীয় বলে রানের খাতা খোলার আগেই সাঝঘরে ফিরেন লিটন।

শ্রীলংকার বোলার চামারার প্রথম ওভারের তৃতীয় বলে লিটন অফ সাইডে ড্রাইভ করতে গিয়ে ব্যাটের কোনায় লেগে বল চলে যায় ধনঞ্জয়া ডি সিলভা হাতে। আর তাতেই প্রথম উইকেটের পতন হয় বাংলাদেশ দলের। শুরুতেই দলীয় ৫ রানে লিটনকে হারিয়ে কিছুটা চাপে পড়ে বাংলাদেশ। এরপর বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে নিয়ে ভালোই লড়াই করছিলেন দলপতি তামিম ইকবাল। কিন্তু গুনাতিলাকার বলে ব্যক্তিগত ১৫ রানে ক্যাচ আউট হন সাকিব। ১২.১ ওভারে দলীয় ৪৩ রানে ২ উইকেট হারায় টাইগাররা।

এরপর দলের হাল ধরেন তামিম। ব্যাট হাতে বেশ দাপটে খেলেছেন টাইগার ওয়ানডে দলপতি । আজ ক্যারিয়ারে ৫১তম হাফ সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন তিনি। তামিম ৬৫ বল মোকাবেলা করে ৬টি চার ও ১ ছক্কার সাহায্যে ৫০ রান করেন। কিন্তু এরপর তাড়াহুড়া করে খেলতে গিয়ে লঙ্কান বোলার ডি সিলভার বলে এলবিডব্লিউ হয়ে ব্যক্তিগত ৫২ রানে সাজঘরে ফিরেন তামিম। এরপর মাঠে নামেন মিঠুন। কিন্তু তিনি ক্রিজে বেশিক্ষণ টিকে থাকতে পারেননি। রানের খাতা খোলার আগেই ডি সিলভার দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন মিঠুন। ফলে দলীয় শতরান তোলার আগেই ৪উইকেট হারায় বাংলাদেশ। তবে মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহ আউট হবার পর আসিফ ও সাইফউদ্দিন রানের চাকা সচল রাখেন। আফিফ২৭ ও সাইফউদ্দিন ১৩রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন।

বল হাতে শ্রীলংকার হয়ে ডি সিলভা ৩টি উইকেট শিকার করেন। এছাড়া চামেরা ,গুনাতিলাকা ও সান্দাকান ১টি করে উইকেট নেন।