সময়ের আগেই রাজশাহীর বাজারে বিক্রি হচ্ছে পাকা আম

বিজ্ঞাপন

রাজশাহীতে আম পাড়ার সময় বেঁধে দিয়েছে জেলা প্রশাসন, যেন পরিপক্ব আমই গাছ থেকে নামানো হয়। কিন্তু সময়ের আগেই রাজশাহী মহাগরীর বিভিন্ন এলাকায় ঝুড়ি সাজিয়ে পাকা আম বিক্রি করতে দেখা যাচ্ছে। জেলা প্রশাসনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আগামী ১৫ মে’র আগে বাজারে কোন ধরনের পাকা আম পাড়া যাবে না।

গত শনিবার থেকে নগরীর সাহেববাজারসহ কয়েকটি স্থানে গোপালভোগ আম বিক্রি করতে দেখা যায়। দাম কেজিপ্রতি ১০০ থেকে ১২০ টাকা। ব্যবসায়ীদের দাবি, গাছে আম পেকে গেছে। তাই বাগানমালিকের কাছ থেকে তারা কিনে এনেছেন। তবে কয়েকজন ব্যবসায়ী বলেন, আম নামানোর সময়সীমা বেঁধে দেয়ার বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না। আম পেকে যাওয়ায় তিনি বাজারে এনেছেন।

বৃহস্পতিবার কৃষিবিদ, ফল গবেষক, চাষি ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে সভা করে জেলা প্রশাসন আম নামানোর তারিখ নির্ধারণ করে। সবার মতামতের ভিত্তিতে গৃহিত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, গত বছর যেসব জাতের আম যেদিন থেকে নামানো শুরু হয়েছিল, এবারও সেই তারিখে ওই জাতের আম নামানো যাবে। এর মধ্যে সব ধরনের গুটি জাতের আম নামানো যাবে আগামী ১৫ মে থেকে।

আর উন্নতজাতের আমগুলোর মধ্যে গোপালভোগ ২০ মে, লক্ষণভোগ বা লখনা ও রাণীপছন্দ ২৫ মে এবং হিমসাগর বা খিরসাপাত ২৮ মে থেকে নামিয়ে হাটে তুলতে পারবেন বাগানমালিক ও চাষিরা। এছাড়া ৬ জুন থেকে ল্যাংড়া, ১৫ জুন থেকে ফজলি ও আম্রপালি এবং ১০ জুলাই থেকে আশ্বিনা ও বারি আম-৪ নামানো যাবে। এর আগে এসব আম নামানো যাবে না।

জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অভিজিত সরকার বলেন, এ বিষয়টি নজরদারি করার জন্য অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবু আসলাম জেলা প্রশাসনের সকল নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের নির্দেশনা দিয়েছেন। দ্রুতই তাঁরা অভিযানে নামবেন। সময়ের আগে কোন আম বাজারে বিক্রি করতে দেয়া হবে না।