জেলেখানায় রিয়াকে ধর্ষণের ভয় দেখানো !

রিয়া চক্রবর্তী।

জেলে রিয়া চক্রবর্তীর সঙ্গে দুর্ব্যবহার করা হচ্ছে। শারীরিক অত্যাচারের পাশাপাশি ধর্ষণের ভয়ও দেখানো হচ্ছে তাকে। মানসিকভাবে বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছেন। শুক্রবার মুম্বাইয়ের বিশেষ আদালতে জামিনের শুনানির সময় এই অভিযোগ করেন রিয়া।

সুশান্ত মামলায় মাদক চক্রের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ৮ সেপ্টেম্বর রিয়াকে গ্রেপ্তার করে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো। সূত্র জানায়, জেরায় নাকি বলিউডের প্রথম সারির ২৫ জনের নাম উল্লেখ করেছিলেন রিয়া। যাঁরা প্রত্যেকে মাদক চক্রের সঙ্গে জড়িত। শুধু অভিনেতা-অভিনেত্রীই নন তালিকায় পরিচালক-প্রযোজকরাও নাকি রয়েছেন। সকলকে নাকি সমন পাঠাতে পারে এনসিবি। এরই মধ্যে সংবাদমাধ্যম জি নিউজের পক্ষ থেকে সুশান্ত-রিয়ার একটি পুরনো ভিডিও প্রকাশ করা হয়।

গণমাধ্যমে সুশান্ত-রিয়ার একটি ভিডিও তে দেখা যায় কয়েকজনকে আসর সাজিয়ে ধূমপান করতে। মজার ছলে নিজের সিগারেটকে ‘হার্বাল সিগারেট’ আখ্যা দিয়েছিলেন সুশান্ত। মনে করা হচ্ছে তার মধ্যেই গাঁজা মেশানো হয়েছিল। একটি স্টিকের মাধ্যমেও ধূমপান করতে দেখা যায় রিয়াকে।

এনসিবি জানায়, সুশান্তকে কখনও মাদক সেবন করার জন্য না করেননি রিয়া। বরং নিজেও মাদকে অভ্যস্ত হয়ে পড়েন।

এরই মধ্যে আরো এক চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ্যে এসেছে। লকডাউনের সময় নাকি রিয়ার বাড়িতে আধা কিলো গাঁজা পৌঁছে দিয়েছিলেন এক ক্যুরিয়ার সার্ভিসের কর্মী। এনসিবির জেরার মুখে ওই কর্মী জানান, রিয়ার ভাই সৌভিক সই করে সেই ডেলিভারি নেন। সঙ্গে ছিলেন দীপেশ সাওয়ান্তও।