চেহারা ছাড়া মেয়েদের আর কী গুণ খোঁজে ছেলেরা

ছবি ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত

ছেলেদের মনে মেয়েদের কোন বিষয়গুলো বেশি স্থান পায়, গবেষকরা অনেক সময় এই নিয়ে ভিন্ন ভিন্ন সব ব্যাখ্যা দিয়েছে। তবে খুব কম ব্যাখ্যাকে পারফেক্ট মনে করছেন বিশ্লেষকরা। তাঁদের দাবি, একজন মেয়েকে সঙ্গী হিসেবে বেছে নেয়ার ক্ষেত্রে সব ছেলের পছন্দ একই রকম হবে না এটাই স্বাভাবিক। পছন্দ-অপছন্দ অবশ্যই একেক জনের একেক রকম।

 

আরও পড়ুন:
টিকটিকি তাড়ানোর সহজ উপায়

তবে মেয়েদের চেহারাই পুরুষের চোখে আবেদনময়ী হওয়ার একমাত্র কারণ নয় বলেও মনে করছেন বিশ্লেষকরা। প্রথম দেখায় চেহারা লক্ষ্য করলেও আরও কয়েকটি বিষয় রয়েছে যেগুলো মেয়েদের প্রতি ছেলেদের আকর্ষণ বাড়িয়ে দেয়। এমন পাঁচটি বিষয় রয়েছে যা কোনো মেয়েকে আরও আকর্ষণীয় করে তোলে-

আত্মবিশ্বাস

উচ্চ আত্মমর্যাদাসম্পন্ন মেয়েদের প্রতি ছেলেরা বেশি আকৃষ্ট হয়। একজন আত্মবিশ্বাসী মেয়ে স্বাধীনতা বজায় রাখে এবং জীবনের যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে পারেন। এমনকি সঙ্গী তাঁর ওপর দীর্ঘ সময়ের জন্য নির্ভর করতে পারে এবং সুরক্ষিত বোধ করে।

রসবোধ

হাস্যরস বোধহীন ব্যক্তি বিরক্তিকর। পুরুষ হোক বা নারী সবার জন্যই এটা প্রযোজ্য। অনেক ছেলে সেই মেয়েকে আকর্ষণীয় মনে করেন যার রসবোধ ভালো এবং বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে কৌতুক করতে পারেন। তাঁরা তাঁদের রসিকতা দিয়ে একটি জমায়েতকে জীবন্ত করে তুলতে পারেন।

ফ্যাশন সচেতন

সম্পর্কের ক্ষেত্রে দুইজনেরই ফ্যাশনের বিষয়ে সচেতন থাকা গুরুত্বপূর্ণ। তবে এই বিষয়টি ছেলেদের চেয়ে মেয়েদের ক্ষেত্রে বেশি প্রযোজ্য। কারণ একজন ফ্যাশন সচেতন মেয়ে আরও বেশি আকর্ষণীয় হয়ে ওঠে।

ক্যারিয়ারের সফলতা

যদিও পুরুষরা এটি উচ্চস্বরে বলতে পারে না, তবে সফল নারী পুরুষদের কাছে খুব আকর্ষণীয়। আর্থিকভাবে সুরক্ষিত ও পেশাগতভাবে সফল নারীরা পুরুষদের কাছে বেশি আবেদনময়ী। এটি তাঁদের সন্তুষ্টি প্রদান করে যে তাঁদের সঙ্গী শুধুমাত্র অর্থের প্রয়োজনে তাঁর কাছে থাকছে না।

বুদ্ধিমত্তা

সাধারণত কম বুদ্ধির মেয়েকে ছেলেরা কম পছন্দ করেনা। কোনো লোক যদি তাঁর সঙ্গীর সাথে তাঁর বাকী জীবন কাটানোর পরিকল্পনা করেন তবে তিনি সম্ভবত বুদ্ধিমতী মেয়ের খোঁজ করবেন।