কু-প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় স্কুল ছাত্রীকে হত্যার অভিযোগ

ছবি প্রতীকি

নওগাঁর রাণীনগরে লম্পট বক্করের কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়া এবং পরিবারকে জানানোর অপরাধে ৯ম শ্রেণীর স্কুল ছাত্রীর বাড়িতে ভাড়াটিয়ে গুন্ডা বাহিনী দিয়ে দফায় দফায় হামলা চালিয়ে তাকে হত্যা করে ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ তুলেছেন নিহত ফাইমার (১৪) পরিবার । ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার কাশিমপুর ইউপির বাহাদুরপুর গ্রামে। ঘটনা স্থল থেকে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে নওগাঁ সদর হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষনা করেন।

পারিবারিক ও সরজমিনে জানাগেছে। নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার বাহাদুরপুর পশ্চিমপাড়া গ্রামের মুত আহাদ আলির ছেলে আবু বক্কর দীর্ঘদিন যাবত প্রতিবেশি হাতেম আলির স্কুল পড়–য়া মেয়ে সায়েম উদ্দিন মেমেরিয়াল একাডেমির নবম শ্রেণির ছাত্রী ফাইমা (১৪) কে স্কুলে যাবার পথে তাকে প্রায় উত্তোক্ত করতো ।এনিয়ে এক বছর আগে পারিবারিক ভাবে বৈঠকের মাধ্যমে নিষেধ করা হয়েছে। তার পরেও কোন ভাবেই ফাইমার পিছ’ ছাড়ছেনা লম্পট আবুবক্কর ।

এমনকি ফাইমার সাথে কথা বলতে নিষেধ করায় আবুবক্কর ফাইমাকে দুনিয়া থেকে সরিয়ে দিবে বলে হুমকি দিয়েছে এমন অভিযোগ নিহতের পরিবারের। গত রবিবার সন্ধা অনুমান ৮ টার সময় আবার ও ফাইমাকে কু-প্রস্তাব দিলে সে তার পরিবারকে জানিয়ে দেয় । এসময় নিহতের পরিবার প্রতিবাদ করলে আবু বক্কর পাশের গ্রাম থেকে ভাড়াটিয়া গুন্ডা বাহিনী নিয়ে এসে নিহতের পরিবারে দুই দফা হামলা চালালে নিহতের মামা আব্দুল মজিদ (৩৫) সহ বেশ কয়েকজন আহত হয়। আহতদের নিয়ে চিকিৎসার জন্য রাণীনগর হাসপাতালে গেলে তৃতীয় বারের মত আবারও হামলা চালায়।

এসময় বাড়িতে কোন ছেলে মানুষ না থাকায় সুযোগ বুঝে আবু বক্কর ও তার ভাড়া টিয়া গুন্ডা বাহিনীরা স্কুল ছাত্রী ফাইমাকে রশিতে ঝুলিয়ে রেখে গেছে বলে সাংবাদিকদের জানান নিহতের পরিবার। এ ঘটনায় রাণীনগর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।

এঘটনায় আবুবক্কর পলাতক থাকায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি

এ ঘটনায় রাণীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জহুরুল হক দেশ দর্পণ‘কে জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় আহতকে উদ্ধার করে নওগাঁ সদর হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষনা করেন এবং সদর হাসপাতাল থেকেই লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে। মামলা হলে আসামীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।