মহামারী করোনা, মহাজ্ঞানী আমরা !

বিজ্ঞাপন

৮৮৭ শনাক্ত, নমুনা টস্টে ৫৭৩৮, অর্থ শতকরা ১৫ জন। এই ফলাফল হলো বিগত দিনে আমারা কেকতটুকু লকডাউন মেনে সামাজকি দুরত্ব বজায় রখেছি। পরীক্ষার্থীর প্রতি একশো জনে ১৫ জন। সাধারণত এই সময় পরিবারের মেয়েরা খুবই কম বাহির আসছে। তাদের আনুমানকি ১০০-৫০=৫০ জন বাহিরে। এর মধ্যে রোগী, সরকারী কাজে জরুরি সেবা ইত্যাদিতে ৫০-৫=৪৫% লোক বাহিরে চলাফেরা করছে। তার মধ্যে ৪৫-১৫=৩০% লোক ইমিউনিটি তৈরি করছে। আক্রান্ত এই ১৫ জন যদি প্রত্যকে জন দিনে একজন করে সংক্রামিত করে ১৫ দিনে তাহলে ১৫×১৫=২২৫ জন এইভাবে ২২৫×২২৫=৫০৬২৫ আক্রান্ত সংখ্যা অবস্থা জ্যামিতির হিসাব ও ছাড়িয়ে যাবে। দেশের সরকার ছুটি দিল। খাবার দিল। বেতন দিল। আরো কত সুযোগ সুবিধা দিল আর আমরা শুধু চা পান বিড়ি সিগারেট আর আড্ডা দেওয়ার জন্য বাহিরে যেয়ে ১৫% লোককে আক্রান্ত করলাম।

আরো পড়ুন :
বসুন্দিয়ায় ২০০ পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী দিলেন এমপি নাবিল
প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ১৫ লাখ টাকা দিল ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়
রুদ্রপুরে লাশ নিয়ে নোংরা রাজনীতি : ইউপি চেয়ারম্যানকে ফাঁসানোর চেষ্টা

দেশ লকডাউন না দিলে অর্থনৈতিকভাবে ঐ হিসেবে এগিয়ে যেত। কারন পৃথিবীর সব দেশ লক। শুধু আমাদের দেশ খোলা থাকলে সবাই বাজার করতে আসত, বিমান নিয়ে আসত চা খেতে। কিন্তু নাগরিকদের সুযোগ সুবিধা দিল। নাগরিকগন বিনিময়ে ১৫% আক্রান্ত নাগরিকের বোঝা দিল। মৃত্যু যন্ত্রণা তো আছেই।

আবার অসুস্থ হয়ে গোপন করে ডাক্তারদের আক্রান্ত করল। যার কারনে পেট ব্যথা, হার্টের সমস্যা, স্ট্রোকসহ সকল রোগী স্বয়ংক্রিয় চিকিত্সা নিয়ে ধুকে ধুকে মরছে।

মাইক দিয়ে। ঢোল পিটিয়ে, সচেতন করা গেল না। অথচ আমরা কিন্তু সচেতন? কারন যে কেউ তো কথায় কথায় বলে সরকারী লোক হয়ে আইন মানছেন না,ঠিক করছেন না, অন্যায় করছেন। মানে এতই সচেতন যে ডিসি এসপি জজ ব্যারিস্টার, কিছুই না। মুহূর্তে মন্ত্রীর পদ উল্টো পাল্টা করে দেই। এত বেশী বুঝি যে তা ১৫ কোটি লোক মেনে চলতে বাধ্য হয় অথচ এই ১৫% লোককে সুস্থ রাখতে পারলাম না।

বিদ্যাবুদ্ধি আর নীতির জোর এতই উপরে যে করোনায় আক্রান্ত বাবার লাশ বৃষ্টিতে আর মায়ের জ্যান্ত দেহ জংগলে। আর নিজে চায়ের আড্ডায়।

তার পরেও আমাদের মধ্যে অধিকাংশ সচেতন বলেই এখন অন্য দেশের মত হয় নাই। এই অংশে যেন সবাই যোগ দেয় সে উদ্দেশ্যে এই লেখা।

তাহলে আমরা নিজেরা এত বেশি বুঝি যে নিজের আক্রান্ত ও মৃত্যু নিজেরা ডেকে আনলাম।

লেখক: ইমাউল হক, পিপিএম
পুলিশ পরির্দশক

মে ১০, ২০২০ at ১৭:১২:৪২ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/ইএইচ/এএডি