অসচ্ছল ব্যক্তি পেলেন দুটি বাচ্চাসহ একটি ছাগল ও ইফতারসামগ্রী

স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন জোনার ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলায় অসচ্ছল এক ব্যক্তিকে দুটি বাচ্চাসহ একটি ছাগল ও ১ মাসের ইফতারসামগ্রী দেয়া হয়েছে।

বুধবার সকালে ভাতগ্রাম ইউনিয়নের টিয়াগাছা গ্রামের খালেক মিয়াকে এসব দেয়া হয়। ইফতার সামগ্রীর মধ্যে ছিল ৫ কেজি আটা, ৪ কেজি চিনি, ৪ কেজি ছোলা, ৩ কেজি অ্যাংকর ডাল, ২ কেজি সেমাই, ১ লিটার সয়াবিন তেল, ১ কেজি বুন্দিয়া ও ১ কেজি খেজুর। এসময় উপস্থিত ছিলেন সাদুল্লাপুর উপজেলা পরিষদের সচিব (সিএ) মো. রেজওয়ানুর রহমান ও জোনার ফাউন্ডেশনের সভাপতি এ জে আশিকুর রহমান শাওন ও সাংগঠনিক সম্পাদক আতিক আহম্মেদ তুলিপ।

আরো পড়ুন :
৩০ এপ্রিল সাবেক শিক্ষামন্ত্রী এএসএইচকে সাদেকের ৮৬ তম জন্মবার্ষিকী
কেশবপুরে আরো দুজনের করেনা শনাক্ত : মোট আক্রান্ত ১০
অসহায়দের জন্য শাহীন চাকলাদারের পক্ষে গোলাম মোস্তফার নগদ টাকা প্রদান

জোনার ফাউন্ডেশনের সভাপতি এ জে আশিকুর রহমান শাওন বলেন, স্ত্রীসহ দুই ছেলে ও এক মেয়েকে নিয়ে সংসার ছিল খালেক মিয়ার। ২০ বছরেরও বেশি সময় ধরে খালেক মিয়া মৃগী রোগে আক্রান্ত।

তখন তিনি কৃষি কাজ করতেন। ৪ বছর আগে খালেক মিয়ার ২০ শতাংশ জমি বিক্রি করে খালেক মিয়াকে রেখে স্ত্রী ও ছেলে-মেয়েরা সবাই একসাথে মুন্সিগঞ্জে চলে যান। সেখানেই ছেলেরা কৃষি কাজ করেন আর মেয়েটি গার্মেন্টসে চাকরি করেন। বয়সের ভারে ন্যুব্জ ৬০ বছর বয়সী খালেক মিয়া এখন ভিক্ষা করেন। থাকেন কৃষক বড় ভাইয়ের তৈরি একটি টিনের ঘরে। সে ঘরের বেড়া বাঁশের চাটাইয়ের। ঘরে নেই কোন খাট বা চকি। নেই চেয়ার-টেবিল। থাকার মধ্যে আছে শুধু একটি মশারী, কাঁথা, কম্বল, বালিশ, প্লেট, গ্লাস ও একটি জগ। এভাবেই মানবেতর জীবন-যাপন করছেন তিনি। তাই খবর পেয়ে বৃদ্ধ খালেক মিয়াকে এই সহায়তা দেয়া হয়।

এর আগে গত ৩০ মার্চ একই গ্রামের প্যারালাইজড অসহায় ৫৫ বছর বয়সী ওরো প্রমানিককে একটি দোকানঘর করে দেয়া হয়। পরে ১৬ এপ্রিল দামোদরপুর ইউনিয়নের ছিট জামুডাঙ্গা গ্রামের দৃষ্টি প্রতিবন্ধী অসহায় মো. মালেক মিয়াকে দুটি বাচ্চাসহ একটি ছাগল দেয়া হয়।

ফাউণ্ডেশনের সভাপতি বলেন, আমাদের এ স্বাবলম্বী কার্যক্রম চলমান থাকবে। যদি কোন হৃদয়বান দানশীল ব্যক্তি সহায়তা করতে চান তাহলে যোগাযোগ করতে পারেন এই ০১৭৯৬-১৩৪০১৪ নম্বরে।

এপ্রিল ২৯, ২০২০ at ১৭:৪৬:৪২ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/এসবি/এএডি