আমরা ঐক্যবদ্ধ থাকলে দল ও সরকার শক্তিশালী হবে : শাহীন চাকলাদার

যশোর-৬ কেশবপুর সংসদীয় আসনের উপ-নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ও যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার বলেন, কেশবপুরের সব শ্রেণীর মানুষ এখন এক এবং ঐক্যবদ্ধ। কেশবপুরের মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করার জন্য আমি আপনাদের এখানে এসেছি। কেশবপুরে আওয়ামী ঘরনার মানুষের একজনের সাথে আরেকজনের মুখ দেখাদেখি হতো না, কথা বলতো না। যখন দেশে উন্নয়ন আর উন্নয়ন চলছিল তখন যদি একজন আরেকজনের সাথে কথা না বলেন- তাহলে তো উন্নয়নে বাধাগ্রস্থ হবে। আওয়ামী লীগ সরকার উন্নয়নে বিশ্বাসী, যারা সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে বাধাগ্রস্থ করবে তাদেরকে ছাড় দেওয়া হবে না। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নেত্রী আমাদেরকে এখানে পাঠিয়েছে। সাংগঠনিকভাবে এখানে যে উন্নয়ন হবে আওয়ামী লীগের সকল সংগঠন তাতে সংযুক্ত থাকবে। একারণে আমাদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে, আমরা ঐক্যবদ্ধ থাকলে দল ও সরকার শক্তিশালী হবে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় কেশবপুর পৌর আওয়ামী লীগ, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের সমন্বয়ে কেশবপুর পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় চত্ত্বরে অনুষ্ঠিত কর্মীসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

শাহীন আরও বলেন, আমাদের সরকার ধারাবাহিকভাবে ২০৪১ সাল পর্যন্ত আল্লাহর রহমতে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় থাকবে। আপনারা উন্নয়নের সাথে থাকেন।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে আরও বলেন, উপনির্বাচনে নৌকা প্রতীক বিজয়ী হলে আমরা কেশবপুরকে ঢেলে সাজাতে চাই। কেশবপুর শহরকে দৃষ্টি নন্দন করা হবে। মানুষজন দেখে বলবে এটা জেলা শহরের হেড কোয়াটার। আপনারা আমাকে যে ভালবাসা দিয়েছেন আমি আমার সমস্ত রক্ত দিয়ে হলেও আপনাদের সাথে থেকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যাবো ইনশ আল্লাহ।

পৌর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক আব্দুস সোবহানের সভাপতিত্বে ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গৌতম রায়ের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এস এম রুহুল আমীন, সহ-সভাপতি উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব কাজী রফিকুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক গাজী গোলাম মোস্তফা ও পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম মোড়ল। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক এ্যাড. মিলন মিত্র, যুগ্ম-আহ্বায়ক পৌর কাউন্সিলর জামাল উদ্দীন সরদার, পৌর কাউন্সিলর মফিজুর রহমান খান, পৌর মহিলা আওয়ামী লীগের অধ্যাপিকা রেবা ভৌমিক, পৌর যুবলীগের সভাপতি কার্ত্তিক সাহা, পৌর কাউন্সিলর মনিরা খানম, পৌর ছাত্রলীগের সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।

অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব এ.কে.এম. খয়রাত হোসেন, যশোর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহিত কুমার নাথ, সাধারণ সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান শাহারুল ইসলাম, যশোর শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাড. আসাদুজ্জামান আসাদ, যশোর শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান বিপু, যশোর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রওশন ইকবাল শাহী, কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি তপন কুমার ঘোষ মন্টু, সহ-সভাপতি এ্যাড. রফিকুল ইসলাম পিটু, যুগ্ম-সম্পাদক ভাইস চেয়ারম্যান নাসিমা সাদেক, সাংগঠনিক সম্পাদক পৌর কাউন্সিলর শেখ এবাদত সিদ্দিক বিপুল, সাংগঠনিক সম্পাদক সাগরদাঁড়ী ইউপি চেয়ারম্যান কাজী মুস্তাফিজুল ইসলাম মুক্ত, কোষাধ্যক্ষ স্বপন কুমার মুখার্জী, সুফলাকাটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুস সামাদ মাষ্টার, পাঁজিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম মুকুল, ত্রিমোহিনী ইউপি চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান আনিস, বিদ্যানন্দকাটি ইউপি চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন, সাবেক চেয়ারম্যান শাহাদাৎ হোসেন, আওয়ামী লীগনেতা আলতাফ হোসেন বিশ্বাস, শাহাদাৎ হোসেন, উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক প্যানেল মেয়র বিশ্বাস শহিদুজ্জামান শহিদ, সাবেক আহ্বায়ক প্রভাষক কাজী মুজাহীদুল ইসলাম পান্না, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী রাবেয়া ইকবাল, সাধারণ সম্পাদিকা মমতাজ খাতুন, উপজেলা যুব মহিলা লীগের সভানেত্রী মিনু রানী দে ইতি, সাংগঠনিক সম্পাদিকা ইউপি সদস্য রেহেনা ফিরোজ, পৌর কাউন্সিলর আব্দুস সাত্তার খান, পৌর কাউন্সিলর আতিয়ার রহমান, পৌর কাউন্সিলর মেহেরুন নেসা মেরী, সাবেক পৌর কাউন্সিলর মনোয়ার হোসেন মিন্টু, পৌর আওয়ামী লীগনেতা জাহাঙ্গীর আলম, রমজান আলী মোড়ল, হাবিবুর রহমান হাবিব, ওহেদুজ্জামান বিশ্বাস, পৌর মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদিকা ফাতেমা খাতুন, ইউপি সদস্য কামাল হোসেন, পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক আবুল বাসার খান, যুগ্ম-আহ্বায়ক সেলিম খান, আওয়ামী লীগনেতা নজরুল ইসলাম, উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক কাজী আজাহারুল ইসলাম মানিক, আবু হাসান, পৌর ছাত্রলীগের সোহান প্রমুখ।