দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা

চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হদা উপজেলার পারকৃষ্টপুর মাঠ থেকে দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।পারকৃষ্টপুর গ্রামের নাসিরুল ইসলামের মেয়ে দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্রী সুমাইয়া(৭)।

শনিবার রাত সাড়ে নয়টার সময় পারকৃষ্টপুর মাঠ থেকে মৃত সুমাইয়ার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে জানায় পুলিশ।

এলাকাবাসি সৃত্রে থেকে জানাযায়, দামুড়হুদা উপজেলার পারকৃষ্ণপুর গ্রামের নাসিরুল ইসলামের মেয়ে সুমাইয়া সকালে ছয়ঘড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের যায়। পরে সে স্কুল থেকে ১২টার সময় বাড়ি ফিরে আসে। দুপুরে খাওয়া-দাওয়ার পর তাকে আর খুঁজে পাওয়া যায় নাই।
আরও পড়ুন: বিএনপির হরতালে যান চলাচল স্বাভাবিক

বিকাল পর্যন্ত সুমাইয়া বাড়ি ফিরে না আসিলে এলাকার বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি পাওয়া না গেলে গ্রামের মসজিদে মাইকিং করা হয়। তারপর ও কোন সন্ধান না পেলে গ্রামের লোকজন নিয়ে বিভিন্ন মাঠে খোজাখুজির এক পর্যায়ে ময়না গাড়ি মাঠে পারকৃষ্ণপুর গ্রামের খোদাবক্সর ছেলে আইয়ুব আলীর শিম ক্ষেতের মধ্যে তার মৃত্যু লাশ দেখতে পায়। পরে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটস্থান থেকে সুমাইয়ার বিভস্ত লাশ উদ্ধার করে। মৃত্যর লাশ উদ্ধার করে ময়না তদÍর জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে পুলিম জানায়।

দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত্য (ওসি) সুকুমার বিশ্বাস সত্যতা নিশ্চিত করে জানান ৭ বছরের একটি শিশু লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে যে ধর্ষণ করে তাকে শ্বাসরুদ্ধ করে মেরে ফেলা হয়েছে। তবে ময়না তদন্তর রিপোর্ট পেলে সঠিক তথ্য পাওয়া যাবে।

দেশদর্পণ/টিআর/এসজে