সর্বনাশা রূপ নিয়েছে করোনা

প্রাণঘাতী নভেল করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে তিব্বতসহ চীনের সব অঞ্চলে। আক্রান্তের সঙ্গে বাড়ছে মৃতের সংখ্যাও। উদ্বেগ প্রকাশ করে বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে, পুরো বিশে^র এখন সতর্ক হওয়া দরকার। যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য প্রস্তুত হওয়া দরকার। এদিকে চীনের হেলথ কমিশন জানিয়েছে, করোনা ভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা এক দিনেই ১৩২ থেকে বেড়ে হয়েছে ১৭০। নতুন করে ২ হাজারের বেশি মানুষের দেহে প্রাণঘাতী এ ভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। চীনেই আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ হাজার ৭৭১ জন। দেশটির মূল ভূখণ্ডের বাইরে আরো ১৯ জায়গায় অন্তত ৯১ জনের দেহে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে। তবে চীনের বাইরে এ ভাইরাসে কারো মৃত্যুর তথ্য এখন পর্যন্ত আসেনি।

জার্মানি, ভিয়েতনাম ও জাপানের নাগরিকদের মধ্যেও এ ভাইরাস ছড়ানোর ঘটনার দিকে ইঙ্গিত করে বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক তেদ্রোস আধানম গেব্রিয়েসাস বলেছেন, গত কয়েক দিনে কিছু দেশে যা হয়েছে, বিশেষ করে ভাইরাস যেভাবে মানুষ থেকে মানুষে ছড়াতে শুরু করেছে, এটা আমাদের উদ্বিগ্ন করে তুলেছে। যদিও চীনের বাইরে আক্রান্তের সংখ্যা তুলনামূলক এখনো অনেক কম। কিন্তু এর মধ্যেই বড় আকারে তা ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি রয়ে গেছে। চীনে ডজনখানেকের বেশি বড় শহরে পাবলিক বাস, ট্যাক্সি ও রাইড শেয়ারিং সেবা বন্ধ রয়েছে। স্কুল ও দোকানপাট খুলছে না। ধস নেমেছে পর্যটনে। কিন্তু ভাইরাস ছড়িয়ে পড়া ঠেকানো যায়নি।

এদিকে চীনের ফুটবল এসোসিয়েশন ২০২০ মৌসুমের সব ম্যাচ ও টুর্নামেন্ট স্থগিত ঘোষণা করেছে। বিভিন্ন বিমান পরিবহন সংস্থা চীনের পথে ফ্লাইট কমিয়ে দিয়েছে। স্টারবাক, আইকিয়ার মতো কয়েকটি আন্তর্জাতিক চেইন শপ চীনে তাদের সব দোকান বন্ধ রাখছে। বড় আন্তর্জাতিক কোম্পানিগুলো তাদের কর্মীদের চীনে যাতায়াতের ওপর কড়াকড়ি আরোপ করেছে। যুক্তরাষ্ট্র, জাপানসহ কয়েকটি দেশ ইতোমধ্যে তাদের নাগরিকদের উহান ও চীন থেকে সরিয়ে নিতে শুরু করেছে। দেশে ফেরানোর পর তাদের বিশেষ পর্যবেক্ষণে রাখা হচ্ছে। অস্ট্রেলিয়া তাদের নাগরিকদের চীন থেকে সরিয়ে ভারত মহাসাগরে একটি দ্বীপে নিয়ে পর্যবেক্ষণে রাখার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে। যুক্তরাজ্য ঘোষণা দিয়েছে, চীন থেকে আসা সব যাত্রীকে ১৪ দিন সরকারি ব্যবস্থায় পর্যবেক্ষণে থাকতে হবে। ফ্রান্স, কানাডা, ফিলিপাইন, মালয়েশিয়া এবং ভারতও তাদের নাগরিকদের চীন থেকে ফিরিয়ে নেয়ার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছে।

ভারতে ভাইরাসে আক্রান্ত প্রথম রোগী শনাক্ত : ভারতে প্রথমবারের মতো একজনের শরীরে প্রাণঘাতী নভেল করোনা ভাইরাস ধরা পড়েছে। দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, কেরালায় উহান বিশ^বিদ্যালয়ে এক শিক্ষার্থীর শরীরে নভেল করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। ওই রোগীকে হাসপাতালে পৃথক অবস্থায় রাখা হয়েছে।

এনডিটিভি জানায়, রোগীর অবস্থা স্থিতিশীল আছে। তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। ভাইরাসটির সংস্পর্শে এসেছিল বলে ধারণা করা ৪০০ জনেরও বেশি লোককে কেরালায় তাদের বাড়িতে নজরদারির মধ্যে রাখা হয়েছে। ভারতের বিভিন্ন বিমানবন্দরে এ পর্যন্ত প্রায় ৩০ হাজার যাত্রীকে পরীক্ষা করেছে দেশটির কর্তৃপক্ষ।