অমর একুশে গ্রন্থ্যমেলায় জুয়েলের `রক্তে ভেজা ভাষা’ কাব্যগ্রন্থ্য

অমর একুশে গ্রন্থমেলায় এবার প্রকাশিত হচ্ছে খলিলুর রহমান জুয়েল এর তৃতীয় কাব্যগ্রন্থ। তিনি যশোরের চৌগাছা রিপোর্টাস ক্লাবের সহ সভাপতি ও চৌগাছা প্রেসক্লাবের সাহিত্য সাংস্কৃতিক সম্পাদক। শিক্ষাকতা তার মূল পেশা কিন্তু মনে প্রাণে তিনি একজন লেখক। উপজেলার বাজে খড়িঞ্চা গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে ১৯৭৮ সালে নভেম্বর ৩০ তারিখে তিনি জন্ম গ্রহণ করেন।

পিতা মৃত আব্দুর রহমান মাষ্টার। মাতাঃ মোছাঃ হামিদা বেগম, পাঁচ ভাই এর মধ্যে তিনি দ্বিতীয়। লেখাপড়া শেষ করার পর ১৯৯৯ সালে উপজেলার আন্দুলিয়া দাখিল মাদ্রাসায় সহকারি শিক্ষক হিসাব যোগদান করেন। ছোট বেলা থেকেই অদম্য সাহসী সাহিত্যের প্রতি তার ছিল খুব আগ্রহ। বহু ছোট ছোট কবিতা, গান, নাটক, ছড়া প্রবন্ধ রচনা করেছেন। লেখালেখির পথকে প্রশস্ত করার জন্য তিনি ২০০৪ সালে যশোর থেকে প্রকাশিত বহুল প্রচলিত দৈনিক গ্রামের কাগজের পুড়াপাড়া প্রতিনিধি হিসাবে সাংবাদিকতা শুরু করেন।
আরও পড়ুন: ৫০ বছর পরও স্বাধীনতা বিরোধীরা রাজনীতিতে: তথ্যমন্ত্রী

এ ছাড়া দৈনিক দেশ বাংলা ঢাকা ও দৈনিক ডনেট বাংলাদেশ পত্রিকার স্থানীয় প্রতিনিধি হিসাবে কর্মরত আছেন। সাহিত্য চর্চার কারণে ২০১৯ সালে ২৩ শে ফেব্রয়ারী উপজেলার আন্দুলিয়া দাখিল মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ সম্মামনা হিসেবে ক্রেষ্ট তুলে দেন। তিনি ঝিনাইদাহের মহেশপুর উপজেলার আজিজ ফাউন্ডেশন ও আজিজ সাহিত্য পরিষদ থেকে ২০১৯ সালের ৩ ডিসেম্বর সন্মামনা পুরস্কার পান। বাংলাদেশ মানবধিকার সহ বহুবার সাংবাদিকতার উপর প্রশিক্ষণ গ্রহনসহ নানা পুরস্কারে ভুষিত হন।

২০১৮ সালে প্রথম কাব্যগ্রন্থ ’স্বপ্নের সোনালী পালক’ অমর একুশে গ্রন্থ মেলায় প্রকাশিত হয়। ২০১৯ সালে ’স্বাধীনতার সাত সূযর্’ কাব্যগ্রন্থ প্রকাশিত হয়। ’রক্তে ভেজা ভাষা’ তার তৃতীয় কাব্যগ্রন্থ।

দেশদর্পণ/এমআই/এসজে