পাল্টে যাচ্ছে পাহাড়ের চিত্র!

বান্দরবনের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী ইউনিয়নের ঈদগড় বাজার হইতে কাগজিখোলা সড়ক কার্পেটিং দ্বারা উন্নয়ন ও সড়ক প্রশস্ত করনের ফলে পাল্টে যাচ্ছে বাইশারী ইউনিয়ন সহ ৩ ইউনিয়নের চিত্র এবং পরিবর্তন হচ্ছে হাজার মানুষের ভাগ্য।

স্থানীয়রা জানান, পার্বত্যচট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বাবু বীর বাহাদুর এম পি, মহোদয়ের আন্তরিকতা ও বাইশারী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আলম কোম্পানির সার্বিক প্রচেষ্টায় শুধু ইদগড়-কাগজি খোলা সড়ক নয় স্কুল, কলেজ, মসজিদ, মাদ্রাসা,ক্যাং মন্দির, গ্রামীন সড়ক, সৌর বিদ্যুৎ, পল্লীবিদ্যুৎ, ব্রীজ, কালভার্ট সহ অসংখ্য উন্নয়নের কাজ বর্তমানে চলমান রয়েছে। যার ফলে কৃষক থেকে শুরু করে সকল মানুষ নির্বিগ্নে চলা ফেরা ও ব্যবসায়ীরা সহজে ব্যবসা বানিজ্য চালিয়ে যেতে আর কোন ধরনের সমস্যা হচ্ছেনা।

বাইশারী ইউনিয়ন আওয়ামীলী সভাপতি জাহাংগীর বাহাদুর বলেন, পার্বত্য মন্ত্রীর অবদান কেউ অস্বীকার করতে পারবেনা। তিনি শুধু বাইশারী নয় পুরো নাইক্ষংছড়ি উপজেলায় বর্তমানে শত কোটি টাকার কাজ চলমান রয়েছে এবং অধিকাংশ কাজ সম্পন্ন পথে রয়েছে। আগামীতে আরো অনেক কাজ করবেন বলে তিনি জানান।
আরও পড়ুন: সার্টিফিকেট হাতে এগোচ্ছে শিক্ষার্থী, বাঁধা বিষয় কোড!

নাইক্ষ্যংছড়ি এলজিইডির তত্বাবধানে বাইশারী ইউনিয়নের ১নং ও ২নং ওয়ার্ডের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া ঈদগড়-কাগজিখোলা সড়কের সাড়ে ৭ কি.মি নতুন ভাবে প্রশস্ত করণ ও কার্পেটিং দ্বারা উন্নয়নের ফলে যানবাহনের চলাচল সহ মালবাহী গাড়ী চলাচলে আর কোন ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়না বলে জানালেন ১নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য মো: আনোয়ার হোসেন।

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নীল কনাষ্ট্রাকশন কাজটির দায়িত্বে রয়েছেন। প্রায় সাড়ে সাত কোটি টাকা ব্যয়ে বাইশারী ইউনিয়নে ঈদগড় কাগজিখোলা সড়কের নতুন করে সড়ক প্রশস্তকরণ সাড়ে ৭ কি.মি সড়ক কার্পেটিং দ্বারা উন্নয়নকাজ দ্রæত গতিতে মান সম্মতভাবে শেষ করার মানষিকতা নিয়ে করে যাচ্ছেন বলে জানালেন ঠিকাদার মোঃ জসিম উদ্দিন। কাজে কোন ধরনের ত্রুটি হলে পুনরায় করে দিবেন বলে ও তিনি জানান।

বাইশারী ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আলম বলেন পার্বত্য মন্ত্রী বাবু বীর বাহাদুর এমপি মহোদয়ের আন্তরিকতায় ও জনসাধরনের ভালবাসায় বাইশারীতে শত কোটি টাকার কাজ সম্পন্ন হয়েছে এবং আরো কোটি কোটি টাকার কাজ বর্তমানে চলমান রয়েছে।

নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ তোফাজ্জল হোসেন ভুইয়া বলেন আমি ও আমার উপসহকারী প্রকৌশলী রেজাউল করিম কাজটির তত্বাবধানে রয়েছি। কাজের গুনগত মান সঠিক না হওয়া পর্যন্ত কোন ধরনের ছাড় নেই। নো ক¤েপ্রামাইজ নীতিতে আমাদের কাজ চলমান থাকবে।

দেশদর্পণ/একে/এসজে