গৃহবধুর মাথার চুল কেটে দিল প্রতিবেশিরা

চৌগাছায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এক সন্তানের জননী এক গৃহবধুকে বেধম মারপিট করার পাশাপাশি তার মাথার চুল কেটে দিয়েছে প্রতিবেশিরা। স্বজনরা মারাত্মক আহত অবস্থায় উদ্ধার করে চৌগাছা হাসাপাতালে ভর্তি করেন। এ ঘটনায় ভুক্তভোগির স্বামী বাদি হয়ে সংশ্লিষ্ঠ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। পুলিশ পাঁচ অভিযুক্তকে আটক করেছে।

আহতের স্বজন ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, রবিবার বেলা ১১ টার দিকে উপজেলার সলুয়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের স্ত্রী সাথী খাতুনের (২৬) সাথে প্রতিবেশিদের বাকবিতান্ড হয়। এ সময় প্রতিবেশি গোলাম রব্বানীর ছেলে আব্দুস সালাম, কামাল হোসেন, জামাল হোসেন, হাসান আলী ও তাদের স্ত্রী সন্তান মিলে গৃহবধু সাথী খাতুনকে বেধম মারপিট করে। এ সময় তারা সাথীকে মাটিতে ফেলে যে যেমন খুশি লাথি মেরে মারাত্মক আহত করে। শুধু তাই না হামলাকারীরা এ সময় গুহবধুর মাথার চুল কেটে এক প্রকার ন্যাড়া কওে দিয়েছে। মাথার চুল কাটা ও মারার ঘটনাটি প্রতিবেশি আহাদ আলীর ছেলে ইমরান হোসেন মোবাইল ফোনে ধারন করেন বলে জানান স্বজনরা। মারাত্মক আহত অবস্থায় স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে চৌগাছা হাসপাতালে ভর্তি করেন।
আরও পড়ুন: নকলের দায়ে ইবির ১০ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার

আহতের স্বামী রফিকুল ইসলাম জানান, একটি মোবাইল ফোন চুরি হয়ে যাওয়া নিয়ে হামলাকারী প্রতিবেশিদের সাথে তাদের বিরোধ চলে আসছিল। সেই ঘটনাকে কেন্দ্র রবিবার সকালে আকস্মিক ভাবে হামলাকারীরা আমার বাড়িতে এসে সাথীকে একা পেয়ে এমন নির্যাতন চালিয়েছে। এ ঘটনায় তিনি সংশ্লিষ্ঠ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন বলে জানান। থানার সেকেন্ডে অফিসার বিপ্লব কুমার রায় ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অভিযোগ পাওয়ার পর পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে।

দেশদর্পণ/এমআই/এসজে