ডা. আজিজুর রহমান ছিলেন মহান মুক্তিযুদ্ধের নিভৃতচারী বীর মুক্তিযোদ্ধা

শহীদ ডাঃ আজিজুর রহমান ছিলেন মহান মুক্তিযুদ্ধের নিভৃতচারী প্রগতিশীল একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। হোমিও ডাক্তার হিসেবে এলাকায় ছিল তার সুখ্যাতি। তিনি এলাকায় সক্রিয় ভাবে রাজনীতি না করলেও তিনি অসম্প্রদায়িক ও মুক্ত চেতনায় বিশ্বাসী রাজনৈতিক ব্যক্তি হিসেবে পরিচিতি লাভ করেন।

শনিবার সকারে নাভারণ রেল বাজারস্ত আজিজুর রহমানের নিজ বাসভবনে পাবিারিক উদ্যোগে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি শার্শা উপজেলা চেয়ারম্যাান সিরাজুল হক মঞ্জু প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন ১৯৪২ সালে ভারতে জাতীর মুক্তি সংগ্রামের অবিসংবাদিত নেতা মহাত্মা মোহন দাস করম চাঁদ গান্দীজী সুচিত “ভারত ছাড়ো” আন্দোলনে তিনি সক্রিয় অংশ গ্রহণ করেন। আন্দোলন কারি অন্যান্য নেতাদের সাথে ব্রিটিশ সরকারের হাতে গ্রেপ্তার ও কাাবরণ করেন। সাম্প্রদায়িক রাজনীতির প্রতি চরম ঘৃনা থাকায় পাকিস্থানে বসবাস কালে তিনি কমিউনিষ্ট বাম ঘরনার রাজনীতিদের সাথে যোগাযোগ রাখতেন। শহীদ ডাঃ আজিজুর রহমান জাতীর জনক বঙ্গবন্ধুর ১৯৬৭ সালের ৬ দফা আন্দোলনের নেতা যশোর জেলা আওয়ামীলিগের এ্যাডভোকেট মোশারফ হোসেনের নের্তৃত্ত্বে শৈরশাষক আয়ুব খানের রক্ত চক্ষু উপেক্ষা করে জেলার বিভিন্ন অঞ্চালে ৬ দফা দাবী সম্বলিত হ্যান্ড বিল বিলি করে বেড়াতেন।
আরও পড়ুন: একুশে গ্রন্থমেলায় প্রকাশ হচ্ছে শাহানুর আলম উজ্জ্বল’র ষষ্ঠ কাব্যগ্রন্থ

১৯৭১ সালের এপ্রিল মাসে স্থানীয় রাজাকার আব্দুল কাদের শুকুরের নির্দেশে পাক-হানাদার বাহিনী ডাঃ আজিজুর রহমানকে রাতের অন্ধাকের ধরে নিয়ে যায় এবং তাকে নির্মম ভাবে হত্যা করে।

এ অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান মিন্নু, এ্যাডভোকেট মোজাফ্ফর হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক কমান্ডর আলমগীর হোসেন, ডাঃ নাজমুল আহাসান তাহা সহ অন্যান্যরা।

দেশদর্পণ/এমও/এসজে