আসছে মৌসুমের শেষ শৈত্যপ্রবাহ

ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে আরেকটি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে। এটাই চলতি শীত মৌসুমের শেষ শৈত্যপ্রবাহ হতে পারে। এছাড়ও রয়েছে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা। এদিকে কুড়িগ্রাম জেলায় টানা ৫ দিন থেকে চলছে শৈত্যপ্রবাহ। জেলার তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৯ দশমিক ০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এই শৈত্য প্রবাহে কুড়িগ্রামের জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।

কুড়িগ্রামের রাজারহাট কৃষি ও আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুবল চন্দ্র বলেন, কুড়িগ্রামের ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরণের শৈত্যপ্রবাহ প্রবাহিত হচ্ছে।

শনিবার সকালে আবহাওয়াবিদ আরিফ হোসেন বলেন, বর্তমানে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। জানুয়ারি মাসের শেষের দিকে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। বৃষ্টির পর ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহের দিকে আরেকটি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে। চলতিৃ শীত মৌসুমে এটাই হতে পারে শেষ শৈত্যপ্রবাহ। এরপর তাপমাত্রা বাড়তে থাকবে।
আরও পড়ুন: নিজ ঘরে মিলল স্কুলছাত্রের ঝুলন্ত লাশ

এদিকে আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাসে বলা হয়, মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও কোথাও মাঝারী থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে। সারাদেশে রাতের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে এবং দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

এদিকে শৈত্যপ্রবাহের কারণে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে নদীরপাড় এবং চরা লের মানুষ চরম বিপাকে পড়েছে। এছাড়াও ভোগান্তিতে রয়েছে সাধারণ মানুষ এবং শিশু ও বৃদ্ধরাও।

পূর্বাভাসে আরও বলা হয়, উপমহাদেশীয় উচ্চ চাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ এবং তৎসংলগ্ন এলাকা পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে।

দেশদর্পণ/এজিএল/এসজে