বাবা ধারের টাকা শোধ করতে না পারায়…

বাবা ধারের টাকা শোধ করতে না পারায় মেয়ে তুলে দেন ধর্ষকের হাতে। ধর্ষক ওই কিশোরীকে দিনের পর দিন ধর্ষণ করে। পরে জরুরি হেল্পলাইন ৯৯৯-এ ফোন দিলে মঙ্গলবার রাত ১২ টায় কিশোরীকে উদ্ধার করে পুলিশ।

রাজধানীর কামরাঙ্গীরচর এলাকার ঘটনা এটি। গ্রেফতার করা হয় অভিযুক্ত ধর্ষককে। কিশোরীর বাবাকেও গ্রেফতার করা হয়েছে।

পুলিশ জানান, উদ্ধারের পর কিশোরীকে মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের স্ত্রীরোগ ও প্রসূতিবিদ্যা বিভাগে আনা হয়েছে। প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর তাকে ওসিসিতে পাঠিয়ে দেয়া হয়।
আরও পড়ুন: বাংলাদেশের কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইল অ্যামনেস্টি

পুলিশের একজন উপপরিদর্শক জানান, কিশোরীর বাবা বছর খানেক আগে পাশের এক মুরগি বিক্রেতার কাছ থেকে কিছু টাকা ধার করেছিলেন। মেয়েকে ধর্ষণের সুযোগ দিলে টাকা ফেরত দিতে হবে না—এমন শর্ত বেঁধে দেন ওই মুরগি বিক্রেতা। এর পর থেকেই ওই কিশোরী ধর্ষণের শিকার হয়ে আসছিল।

ওই কিশোরী জানান, সংসারে দারিদ্রের কারণে তার মা বিদেশে কাজের খোঁজে গেছেন। গত ১১ জানুয়ারি আবার ধর্ষণের শিকার হলে মেয়েটি এক প্রতিবেশীকে জানায়। তিনিই পরে ৯৯৯ এ ফোন দিয়ে পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। এ ঘটনায় কামরাঙ্গীরচর থানায় মামলা করা হয়েছে।

দেশদর্পণ/এসজে