প্রস্তুত হচ্ছে ইজতেমা ময়দান

আগামী ১৭ জানুয়ারি শুক্রবার শুরু হবে ৫৫তম বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব। সা’দ অনুসারীরা ময়দান বুঝে পাওয়ার পর এগিয়ে চলছে সকল প্রস্তুতি। আগত মুসল্লিদের জন্য প্রস্তুত হচ্ছে ১৬০ একর বিস্তৃত ইজতেমা ময়দান।

বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শেষ হওয়ার পর দ্বিতীয় পর্বে ময়দানে প্রস্তুতে তেমন একটা কাজ না থাকলেও ময়লা আবর্জনা ও ময়দানে নির্গত ড্রেনের বর্জ্য পরিস্কার গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। ময়দানের উত্তর পশ্চিম কোণে অবস্থিত মূল বয়ান মঞ্চের চারদিকে ময়লার দুর্গন্ধ, দ্রুত পরিস্কার না করলে মুশকিল হয়ে দাঁড়াবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়র। তবে ময়লা অপসারণের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে।

ময়দান ঘুরে দেখা গেছে, গত সোমবার রাতে গাজীপুর জেলা প্রশাসক কর্তৃপক্ষের কাছে ময়দানের মাইক, লাইট, সামিয়ানার চটসহ যাবতীয় মালামাল বুঝিয়ে দেন শূরায়ী নেজামের মুরুব্বিরা। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক কর্তৃক গঠিত তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটির আহ্বায়ক অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্টেট শাহিনুর ইসলাম, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার আবু হানিফ, টঙ্গী পশ্চিম থানার ওসি এমদাদুল হকসহ অন্যান্য কর্মকর্তা ও দুই পক্ষের মুরব্বিরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে, কামারপাড়া ব্রীজ সংলগ্ন ২নং টয়লেটের পাশের সড়ক ও জনপদের স্যুয়ারেজ লাইন বন্ধ হয়ে নোংরা ও দুর্গন্ধযুক্ত পানি বয়ান মঞ্চের আশপাশসহ বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে পড়েছে। ফলে বর্জ্য ও বিভিন্ন কারখানার ময়লা মিশ্রিত পানির গন্ধে ময়দানে চলাচল দুঃসাধ্য হয়ে পড়েছে।
আরও পড়ুন: মাজারের সিন্দুক ভেঙ্গে টাকা চুরি!

দ্বিতীয় পর্বের নির্ধারিত সময়ের পূর্বে এসব ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন না করা হলে আগত মুসল্লিরা চরম দুর্ভোগের সম্মুখীন হবেন।

সা’দ অনুসারী আয়োজক কমটির সদস্য হাজী মনির বলেন, আমরা মাঠ বুঝে পেয়েছি। ইতোমধ্যে আমাদের প্রস্তুতি কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। আজ ও কালের মধ্যে সকল কাজ সম্পন্ন হবে।

টঙ্গী পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল হোসেন বলেন, মুসল্লিদের নিরাপত্তায় প্রথম পর্বের ন্যায় দ্বিতীয় পর্বেও বিপুল পরিমাণ পুলিশ সদস্য মোতায়েন থাকবে।

এ ব্যাপারে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম বলেন, সিটির পক্ষ থেকে বর্জ্য অপসারণে প্রায় তিনশ শ্রমিক কাজ করছে। তারা সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত প্রথম পর্বের মুসল্লিদের ফেলে যাওয়া ময়লা-আবর্জনা পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন কাজে নিয়োজিত রয়েছে। এছাড়া ১৬ টনের ১০টি ট্রাক, ৪ টনের ১৪টি, পে-লোডার ৬টি ও ২টি বেকু ময়লা অপসারণে কাজ করছে। আশা করি আজকের মধ্যেই ইজতেমা ময়দানের ময়লা-আবর্জনা পরিস্কার কাজ শেষ হবে এবং মুসল্লিরা নির্বিঘ্নে ময়দানে অবস্থান নিয়ে ইজতেমায় শরীক হবেন।

দেশদর্পণ/এসজে