ইবি ছাত্রীর ব্যাগসহ মোবাইল ছিনতাই

কুষ্টিয়া শহরে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) এক ছাত্রীর ছিনতাইয়ের শিকার হয়েছে। ছিনতাইকারীরা হাতে থাকা ব্যাগসহ মোবাইল ছিনিয়ে নিয়েছে। এসময় ওই ছাত্রীর বাম হাতের বৃদ্ধা আঙ্গুল কেটে গেছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে কুষ্টিয়া শহরের টালিপাড়া এলাকায় এ ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে।

ছিনতাইয়ের শিকার ওই ছাত্রীর নাম জান্নাতুল ফেরদৌস ইরা। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। জান্নাতুল ফেরদৌস জানান, সন্ধ্যায় কুষ্টিয়া শহর থেকে টালিপাড়া এলাকা দিয়ে গলি পথে হেঁটে মেসে ফিরছিলেন। এ সময় মোটরসাইকেলে করে দুইজন ছিনতাইকারী তার হাতে থাকা ব্যাগ জোর করে ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। ব্যাগ জোর করে টান দেয়ায় ওই ছাত্রীর বাম হাতের বৃদ্ধা আঙ্গুল কেটে গেছে। জান্নাতুল ফেদৌসি আরোও জানান, ব্যাগে ছাত্রীর ব্যবহৃত একটি মোবাইল ফোন, এক হাজার টাকা, জাতীয় পরিচয় পত্র, বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচয়পত্র, লাইব্রেরি কার্ডসহ প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ছিল।

এ ঘটনায় কুষ্টিয়া পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে রাস্তার সিসি ফুটেজ দেখে ছিনতাইকারী সনাক্ত করার চেষ্টা করছেন বলে জানা গেছে। এবিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. পরেশ চন্দ্র বর্ম্মন বলেন, ‘বিষয়টি শোনার সঙ্গে সঙ্গে আমি ঘটনাস্থলে এসেছি। ওই ছাত্রী সুস্থ রয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে ছিনতাইকারী সনাক্তের চেষ্টা করছে।

এদিকে, ঘটনার কিছু পরেই বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা ছিনতাইকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। বিক্ষোভ মিছিলটি জিয়া মোড় থেকে শুরু হয়।

পরে মিছিলটি আবাসিক হলগুলো প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়। এসময় শিক্ষার্থীরা বলেন, ‘২০১৯ সালে আইন শৃঙ্খলার অবনতি সবচেয়ে বেশি হয়েছে। আর এর ক্রমগত বৃদ্ধি পাচ্ছে। অসংখ্য নারী নির্যাতন ও ধর্ষনের ঘটনা ঘটে চলেছে। কিন্তু কোনোটিরই সুষ্ঠু ন্যায় বিচার হয়নি।

অন্যায়কারীরা ক্রমাগত ছাড়া পেয়ে পেয়ে আজকে এই অবস্থায় এসেছে। যারা আমাদের বোনের উপর হামলা করেছে তাদের দ্রুত গ্রেফতার করে আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে বিচার নিশ্চিত করার দাবি জানাচ্ছি।