আখেরি চাহার সোম্বা আজ

২৩ হিজরির শুরুতে মহানবী (সা.) গুরতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। ক্রমেই তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। তিনি এতটাই অসুস্থ হয়ে পড়েন যে, নামাজের ইমমাতি পর্যন্ত করতে পারছিলেন না। ২৮ সফর বুধবার মহানবী সুস্থ হয়ে ওঠেন। দিনটি ছিল সফর মাসের শেষ বুধবার। এ দিন শেষবারের মতো গোসল করেন রাসুল (সা.)। শেষবারের মত নামাজে ইমামতি করেন এ দিন।

মহানবীর সুস্থতার খবরে সাহবীগণ উচ্ছ্বসিত হয়ে উঠেন। তারা আনন্দিত চিত্তে আল্লাহ্‌র দরবারে শুকরিয়া স্বরুপ হাজার হাজার দিনার সদকা-খয়রাত এবং বহু সংখ্যক উট-দুম্বা কুরবানি করেন। তবে ২৯ সফর আবার অসুস্থ হয়ে পড়েন মহানবী (সা.)। তার মাত্র ১৫ দিন পর ১২ রবিউল আউয়াল ইন্তেকাল করেন মানবতার মুক্তিদূত মহানবী (সা.)।

আরো পড়ুন:
চৌগাছার কুখ্যাত রাজাকার ফরিদকে আড়াল করতে ছোট ভাই আ. লীগ নেতা সহিদুলের মিথ্যাচার
পুলিশের কথিত সোর্স শরিফকে দুই মাস কারাদণ্ড
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সরকারী মোবাইল নম্বর ক্লোন করে চাঁদা দাবি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন

 

ফারসি বাক্য ‘আখেরি চাহার সোম্বা’র বাংলা অর্থ ‘শেষ বুধবার’। দিনটি শ্রদ্ধার সঙ্গে পালন করে ইসলাম ধর্মবিশ্বাসীরা। সাহাবিদের অনুসরণে এ দিনে দান-খয়রাত করেন। মজসিদে মিলাদ-মাহফিলের আয়োজন করেন অনেকেই। দিবসটি উলপক্ষে বাদ মাগরিব বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে ওয়াজ ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করেছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন। ওয়াজ করবেন নারিন্দার দারুল উলুম আহছানিয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আবু জাফর মুহাম্মদ হেলাল উদ্দিন।

অক্টোবর ২৩, ২০১৯ at ১৩:১২:৩০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আহা/আক/সাহামি