কলেজ ছাত্রীকে শ্লীলতাহানী, প্রতিবাদ করায় বাবাকে মারধর

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় এক কলেজ ছাত্রীকে ইভটিজিং করেছে প্রতিবেশী বখাটে। এ ঘটনায় ঐ কলেজ ছাত্রীর বাবা প্রতিবাদ করলে তাকেও মারধর করে বখাটে ও তার পরিবার। মেয়ের বাবা আহত হয়ে শৈলকুপা হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ত্রিবেনী গ্রামে।

জানা যায়, শেখপাড়া রাহাতন নেছা গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের ইন্টার সেকেন্ড ইয়ার এর ছাত্রী তমা মঙ্গলবার সকালে পরীক্ষা দেয়ার উদ্দেশ্যে বাড়ী থেকে বের হয়। এসময় পথিমধ্যে প্রতিবেশী রশিদ মোল্লার বখাটে ছেলে মোহিন (২২) তার পথ আটকিয়ে টানা হেচড়া ও শ্লীলতাহানি করে। এক পর্যায়ে তার হাত ব্যাগ ছিনিয়ে নিয়ে ছিড়ে ফেলে ও চড় থাপ্পর মারে। আশপাশের লোকজন ছুটে আসলে বখাটে মোহিন দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে কলেজ ছাত্রী তমা কাঁদতে কাঁদতে বাড়ী ফিরে পরিবারকে জানায়। মেয়ের বাবা মোশাররফ হোসেন বখাটের পরিবারের কাছে অভিযোগ করে। অভিযোগের পর দুপুরে মোশাররফ হোসেন বাড়ী ফেরার পথে বখাটে মোহিন ও তার চাচাচো ভাই ইসরাইল, ইসাহাক এবং ইলিয়াসহ বেশ কয়েকজন মিলে অতর্কিত হামলা করে চড় থাপ্পর ও কিলঘুষি মেরে তাকে আহত করে।

কলেজ ছাত্রী তমা জানায়, দীর্ঘ ৪/৫ বছর ধরে বখাটে মোহিনের অত্যাচারে সে ঠিক মতো স্কুল কলেজে যেতে পারেনা। বাড়ী থেকে বের হলেই সে পথ আটকিয়ে কু-প্রস্তাব দেয় ও তুলে নেয়ার হুমকি দেয়।

তমার পিতা মোশাররফ হোসেন জানান, বখাটে মোহিনের পরিবারকে অনেক বার জানানোর পরেও তারা কোন পদক্ষেপ নেয়নি। যে কারনে শৈলকুপা থানা পুলিশের দারস্ত হতে বাধ্য হয়েছি।

শৈলকুপা থানার ওসি বজলুর রহমান জানান, ইভটিজিং রোধে প্রশাসন যথেষ্ট তৎপর রয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।