মেডিকেলে ভর্তি অনিশ্চিত আল ইমরানের

দিন মজুর পরিবারে জন্ম আল ইমরানের। দুই ভাইয়ের মধ্যে ছোট সে। অর্থাভাবে বড় ভাই পড়াশুনায় বেশিদূর এগুতে পারেনি। দারিদ্রতাকে জয় করে আল ইমরান এবার এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজে ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন।

তিনি কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার গুনাইগাছ ইউনিয়নের কৃষ্ণমঙ্গল গ্রামের আহাদ আলীর পুত্র। আল ইমরান মেডিকেলে চান্স পাওয়ায় তাদের পরিবারে এখন বইছে আনন্দের বন্যা। কিন্তু দারিদ্রতার কষাঘাতে সে আনন্দ মলিন হতে চলেছে। মেডিকেলে ভর্তির সুযোগ পেয়েও ভর্তি হওয়া নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে আল ইমরানের।

জানা গেছে, দিন মজুর আহাদ আলীর বাড়ি-ভিটা ছাড়া আর কোন সম্পদ নেই,পরিশ্রম করে যা আয় হয় তা দিয়ে কোন রকম চলে সংসার। আল ইমরানের বড় ভাই আল আমিন জানায়, আল ইমরান ২০১৭ সালে এলাকার কৃষ্ণমঙ্গল স্কুল এন্ড কলেজ থেকে এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ এবং ২০১৯ সালে উলিপুর মহারানী স্বর্ণময়ী স্কুল এন্ড কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়ে কৃতিত্বের সাথে উত্তীর্ণ হয়।

আরও পড়ুন:
চালকবিহীন আকাশযানে পণ্য ডেলিভারি দিচ্ছে গুগল
পাঁচবিবি ব্লাড ডোনেশন টিম নিখোঁজ হাফিজুরকে পরিবারে ফিরিয়ে দিলেন

আল ইমরান খুবই মেধাবী, তার ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন আমরা দারিদ্রতার কারনে পূরন করতে পারছি না। আগামী ২৩ অক্টোবর মেডিকেলে ভর্তির শেষ তারিখ কিন্তু অর্থের অভাবে তার ভর্তি অনিশ্চিয়তা দেখা দিয়েছে। আল ইমরান মেডিকেলে ভর্তির সুযোগ পাওয়ায় পরিবারের সবাই খুশি। কিন্তু মেডিকেলে ভর্তি করাসহ পড়াশুনার ব্যয় বহনের মত আর্থিক সামর্থ্য আমাদের নেই।

উলিপুর মহারানী স্বর্ণময়ী স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল কাদের বলেন, কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষকগণ মেধাবী আল ইমরানের পড়াশুনা চালিয়ে নিতে তাকে সার্বিক সহযোগিতা করেছেন। সমাজের কোন সহৃয়বান ব্যক্তি এই মেধাবী ছাত্রটিকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিলে তার চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্ন পূরণ হত। আল ইমরানকে সহযোগিতা করতে ০১৭৭৩-১১৬৮০৯ যোগাযোগ করতে পারেন।

অক্টোবর ২০, ২০১৯ at ২৩:৩৪:২৯ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আহা/আক/সাই/এএএম