শিক্ষার্থীদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন বুয়েট উপাচার্য অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যার পর নিজের কিছু ব্যক্তিগত ‘ঘাটতি’ রয়েছে উল্লেখ করে শিক্ষার্থীদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম। আজ শুক্রবার (১১ অক্টোবর) বুয়েট অডিটোরিয়ামে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনার শুরুতেই শিক্ষার্থীদের সন্তান সম্বোধন করে উপাচার্য তাদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন।

তিনি বলেন, আবরার ফাহাদ খুনের পর বিভিন্ন কাজে ব্যস্ত থাকার কারণেই তাঁর কিছু কিছু ক্ষেত্রে ঘাটতি ছিল। ক্যাম্পাসে আবরারের জানাজায় অংশগ্রহণ না করার বিষয়ে উপাচার্য বলেন, এ সময় একটু ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হয়েছিল। আমি আসলে জানতাম না যে আবরারের লাশ ক্যাম্পাসে আনা হবে এবং এখানে জানাজা হবে। তাই আমি অংশগ্রহণ করতে পারি নি। পরে জানতে পেরে এসে দেখি তার লাশ গ্রামে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

আবরার ফাহাদ হত্যার পর বুয়েটের আন্দোলনকারীরা ১০ দফা দাবি পেশ করে। এ নিয়ে আজ বিকেলে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে উপাচার্য কথা বলেন। সেখানে তিনি এসব দাবি মেনে নেওয়ার ব্যাপারে নিজের অবস্থান জানান।

তিনি জানান, আবরার ফাহাদ হত্যার এজাহারভুক্ত ১৯ আসামিকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। বুয়েটে সাংগঠনিক ছাত্র রাজনীতি থাকবে না। আবরারের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে এবং মামলার খরচ বুয়েট কর্তৃপক্ষ বহন করবে। বিচারকাজ দ্রুত শেষ করতে সরকারকে চিঠি দেওয়া হবে। বুয়েটে র‌্যাগিং বন্ধ হবে।