ছোট বোনের উপর অভিমান করে বড় বোনের আত্মহত্যা

রাজগঞ্জের পল্লীতে রুমা খাতুন (২৫) নামে এক মেয়ে বোনের বাড়িতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। রুমা খাতুন মণিরামপুর উপজেলার রাজগঞ্জের তেঁতুলিয়া গ্রামের প্রবাসী ওসমান শেখের মেয়ে। বুধবার দুপুরে তার মরদেহ উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

স্বজনরা জানান, চার বছর আগে যশোরের খঁড়কি এলাকার মুছা হোসেনের সঙ্গে রুমার বিয়ে হয়। তার দু বছরের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে ৷ চার মাস আগে রুমা তার স্বামীকে ডির্ফোস দেয়।

গত মঙ্গলবার দুপুরে একই উপজেলার রোহিতা ইউপির সালামতপুর গ্রামে ছোট বোন কুলসুম বেগমের বাড়িতে বেড়াতে যান রুমা। এরপর বিকেলে গলায় ফাঁস দেন তিনি। টের পেয়ে আশপাশের লোকজন রুমাকে নামিয়ে আনেন। কিছুক্ষণ পর তার মৃত্যু হয়।

আরও পড়ুন :
মৃত্যুদাবীর চেক হস্তান্তর ও কর্মী সভা অনুষ্ঠিত
ঝরে গেল তরতাজা একটি প্রাণ

রাজগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির এসআই শাহাবুর বলেন, দুই মাস আগে ঢাকায় কাজে যান রুমা এবং ছোট চাচি শাহানারা বেগমের বাসায় থাকতেন। সেখানে এক যুবকের সঙ্গে রুমার প্রেম হয়।

বিষয়টি টের পেয়ে মঙ্গলবার দুপুরে রুমাকে নিয়ে কুলসুমের বাড়িতে আসেন শাহানারা। সেখানে তার সিমকার্ড ভেঙে ফেলেন কুলসুম ও শাহানারা। পরে অভিমানে আত্মহত্যা করেন তিনি। মণিরামপুর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে।

অক্টোবর ০৯, ২০১৯ at ২০:০৫:৩০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আহা/আক/বএইচ/আজা