আবরার হত্যার বিচারের দাবিতে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ, পুলিশের সাথে ধাক্কাধাক্কি

বাংলাদেশ প্রকৌশল প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধন, বিক্ষোভ পরবর্তী ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যলেয়র কেন্দ্রীয় গ্রন্থগারের সামনে মানববন্ধনের মাধ্যমে কর্মসূচি শুরু হয়। পরে সেখান থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে ঢাকা রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ করে। এসময় সড়কে অবস্থান নিতে চাইলে পুলিশের সাথে ধাক্কাধাক্কি হয় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে ‘আবরার যখন হত্যা হল পুলিশ তখন কোথায় ছিল? ‘আমার ভাই হত্যা কেন, প্রশাসন জবাই চাই, ভারতের দালালেরা হুঁশিয়ার সাবধান, ফেনী নদীর পানি, দেব না দেব না, মংলা বন্দর ব্যবহার করতে, দেব না দেব না, রক্তের বন্যায় ভেসে যাবে অন্যায়, সন্ত্রাসীদের আস্তানা ভেঙে দাও, গুড়িয়ে দাও, সন্ত্রাসীদের আস্তানা এই বাংলায় হবে না, শিক্ষা সন্ত্রাস একসাথে চলে না’ ইত্যাদি স্লোগান দিতে থাকে।

আরও পড়ুন :
ছাত্র ও যুব রাজনীতি নিষিদ্ধ প্রয়োজন: মোমিন মেহেদী
দেশের বাইরে ৭টি দেশে চলবে ‘সাপলুডু’

এসময় শিক্ষার্থীরা বলেন, সন্ত্রাসীরা শুধু আবরারকেই হত্যা করেনি, তারা সকল শিক্ষার্থীদের বিকেক কে হত্যা করেছে। তাদের মনে রাখতে হবে আমরা ছাত্র সমাজ জেগে উঠলে বাংলাদেশে কোথাও তাদের ঠাই হবে না। আবরার হত্যার খুনিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় না আনলে আন্দোলন অব্যহত রাখার নির্দেশ দেন তারা।

তারা আরো বলেন, ছাত্রলীগ সাধারণ শিক্ষার্থীদের উপর প্রতিনিয়ত যে অত্যাচার করে যাচ্ছে কেউ ভয়ে মুখ খুলতে পারছে না। হলে মারধরের শিকার হচ্ছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। দেশের প্রত্যেকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড অব্যহত রয়েছে যার কারনে কোন শিক্ষার্থী ক্যাম্পাসে স্বাধীনভাবে চলতে পারে না। এসময় ছাত্রলীগ মুক্ত ক্যাম্পাস গড়ারও দাবি জানিয়েছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

এছাড়াও সাধারণ শিক্ষার্থীরা ছাত্রলীগকে সন্ত্রাসী সংগঠন আখ্যা দিয়ে নিষিদ্ধ করাসহ ৫ দফা দাবি জানান। দাবিগুলো হচ্ছে ‘আবরার হত্যার সাথে জড়িদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সকল প্রকার দুর্নীতি ও অনিয়ম বন্ধ করতে হবে। দেশ বিরোধী সকল চুক্তি বাতিল করতে হবে। প্রশাসনকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

এসময় ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক দেড় ঘন্টা অবরোধ করে রাখে। ফলে ব্যাপক যানজটের কারণে দুর্ভোগের মুখে পড়েন যাত্রীরা। পরবর্তীতে বিকল্প রাস্তা ব্যবহার করে যাত্রীরা।

সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৯ at ১৭:৫০:২৯ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আহা/আক/এসএস/আজা