অবিলম্বে ওয়েজবোর্ড পূর্ণগঠন করে সংশোধিত গেজেট প্রকাশের দাবি

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সভাপতি রুহুল আমিন গাজী বলেছেন, সরকার দেশের সমস্ত প্রতিষ্ঠানকে কলুষিত করে ফেলেছে। গণতন্ত্রকে রাতের ভোটের মাধ্যমে ধ্বংস করা হয়েছে।

তিনি বলেন, সম্প্রতি নবম ওয়েজ বোর্ড নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে প্রতারণা করা হয়েছে। তাই অবিলম্বে প্রকাশিত গেজেট বাতিল করে সাংবাদিকদের প্রতিনিধিত্বশীল সকল সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে অন্তর্ভূক্ত করে ওয়েজবোর্ড পূর্ণগঠন ও সংশোধিত গেজেট প্রকাশের দাবি জানান তিনি।

বাড়িভাড়া ও গ্র্যাচুইটি কমানো এবং আয়কর সুবিধা বাতিলসহ সাংবাদিকদের স্বার্থবিরোধী নবম ওয়েজবোর্ড রোয়েদাদ সংশোধনসহ বিভিন্ন দাবিতে বিএফইউজে ঘোষিত কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে শনিবার (০৫ অক্টোবর) দুপুরে রাজশাহী নগরীর একটি রেস্টুরেণ্টের কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠিত সাংবাদিক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়ন (আরইউজে) এ কর্মসূচির আয়োজন করে।

এতে সভাপতিত্ব করেন আরইউজে সভাপতি সরদার আবদুর রহমান। সমাবেশে সম্মানিত অতিথি ছিলেন, বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক, রাজশাহী মহানগর বিএনপির সভাপতি ও সাবেক মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল।

প্রধান আলোচক ছিলেন, বিএফইউজে মহাসচিব এম আবদুল্লাহ। বিশেষ অতিথি ছিলেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. সাইফুল ইসলাম ফারুকী ও রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রুয়েট) শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও রুয়েট জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরামের সভাপতি প্রফেসর ড. এসএম আব্দুর রাজ্জাক।

সমাবেশ পরিচালনা করেন আরইউজে সাধারণ সম্পাদক মুহা: আবদুল আউয়াল। সমাবেশে অন্যদের মধ্যে আরও বক্তব্য দেন, ডক্টরর্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ ড্যাবের উপদেষ্টা ও রাজশাহী জেলা ড্যাবের সভাপতি ডা: ওয়াসিম হোসেন, রাবি শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি প্রফেসর ড. আমজাদ হোসেন, রাজশাহী মহানগর জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি অধ্যক্ষ মাহবুবুল আহসান বুলবুল, বিএফইউজের নির্বাহী সদস্য সৈয়দ ফজলে রাব্বী ডলার ও ড. সাদিকুল ইসলাম স্বপন, আরইউজে কোষাধ্যক্ষ মঈন উদ্দিন, রাবি প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম জয় প্রমুখ।

এতে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বিশিষ্ট নদী গবেষক ও লেখক মাহবুব সিদ্দিকী, রাবি প্রফেসর ড. ইফতিখারুল আলম মাসউদ, রাজশাহী মহানগর জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি অধ্যাপক শাহাদাত হোসাইন, রাজশাহী মেডিকেল কলেজের অধ্যাপক ডা. মুর্শেদ জামান মিয়া, আরইউজে সহসভাপতি আবদুস সবুর, নতুন প্রভাতের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সোহেল মাহবুব, দৈনিক বার্তার বার্তা সম্পাদক ফারুক খন্দকার, নতুন প্রভাতের চিফ রিপোর্টার তৌফিক ইমাম পান্না, অ্যাডভোকেট রজব আলী, মিসেস শিরিন শরীফ প্রমুখ। সমাবেশে আরইউজে সদস্যগণ ছাড়াও বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিকগণ ও পেশাজীবী নেতৃবৃন্দ অংশ নেন।

আরও পড়ুন:
দেশ ধ্বংসের ঠিকাদাররাই ধ্বংস হচ্ছে- মোমিন মেহেদী
৫ কেজি পেঁয়াজ উপহার দিলেন বন্ধুর বিয়েতে

সমাবেশে রুহুল আমিন গাজী বলেন, অবৈধ সরকারের সময়ে উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভাবমূর্তি ভুলণ্ঠিত করা হয়েছে। শিক্ষকদের মানমর্যাদা শেষ করে দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, গণমাধ্যম এখন ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। এ অবস্থা থেকে উত্তরণে সবাইকে ঐক্যবব্ধ হতে হবে।

মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, বেগম খালেদা জিয়া আর গণতন্ত্র একাকার হয়ে গেছে, তাঁর মুক্তি ছাড়া গণতন্ত্র মুক্তি পাবে না। তিনি বলেন, দলের আদর্শের প্রতি বিশ্বাস দৃঢ় করতে হবে। মানসম্মত নেতৃত্ব তৈরি করতে হবে।

বিএফইউজে মহাসচিব এম আব্দুল্লাহ বলেন, প্রতিদিন গণমাধ্যম কর্মীরা হয়রানির শিকার হচ্ছেন। তাদের অনেককে অন্যায়ভাবে চাকরিচ্যুত করা হচ্ছে। কিন্তু কোনো প্রতিকার মিলছে না। এই সরকারের আমলে প্রতিমাসে ১৫ থেকে ১৮ জন করে সাংবাদিক নির্যাতীত হচ্ছেন। তিনি সবাইকে ঐক্যবব্ধ হয়ে এসব অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর আহবান জানান।

তিনি বলেন, অবিলম্বে নবম ওয়েজবোর্ড নিয়ে প্রকাশিত গেজেট বাতিল করতে হবে। অন্যথায় সাংবাদিক সমাজ আন্দোলনের মাধ্যমে এ ধরনের হঠকারী পদক্ষেপের বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তুলতে বাধ্য হবে বলেও হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।

এদিকে, সমাবেশের আগে একই স্থানে আরইউজের বিশেষ সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে গঠনতন্ত্রের সংশোধনী অনুমোদনসহ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

বিশেষ সাধারণ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, বিএফইউজে সভাপতি রুহুল আমিন গাজী। বিশেষ অতিথি ছিলেন, বিএফইউজে মহাসচিব এম আব্দুল্লাহ। সভাপতিত্ব করেন আরইউজে সভাপতি সরদার আবদুর রহমান। সভা পরিচালনা করেন আরইউজে সাধারণ সম্পাদক মুহা: আবদুল আউয়াল।

অক্টোবর ০৫, ২০১৯ at ২১:৩৫:২৯ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আহা/আক/এমআর/কেএ