শরীরে আগুন দিয়ে কলেজছাত্রী লিজার মৃত্যু, আত্মহত্যা প্ররোচনার মামলা

থানা থেকে বেরিয়ে নিজের শরীরে আগুন দিয়ে কলেজছাত্রী লিজা রহমান (১৮) মৃত্যুর ঘটনায় আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (০৩ অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে নগর পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত উপকমিশনার (সদর) গোলাম রুহুল কুদ্দুস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলায় নিহতের স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়িকে আসামি করা হয়েছে। এছাড়া সংখ্যা ও নাম উল্লেখ না করে লিজার শ্বশুর বাড়ির বেশ কয়েকজনকে আসামি করা হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত এই মামলায় কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি।

মুখপাত্র অতিরিক্ত উপকমিশনার (সদর) গোলাম রুহুল কুদ্দুস জানান, লিজার (নিজ) বাবা আলম মিয়া বাদী হয়ে বুধবার (০২ অক্টোবর) রাতে নগরীর শাহ মখদুম থানায় মামলাটি দায়ের করেছেন। মামলায় তার মেয়েকে আত্মহত্যার জন্য প্ররোচিত করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন আলম মিয়া। এ জন্য লিজার স্বামী সাখাওয়াত হোসেনকে প্রধান আসামি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন:
ককটেল বিস্ফোরণে পাঁচ শিক্ষার্থী আহত
হেরোইনসহ চিহ্নিত নারী মাদক ব্যবসায়ী আটক

এছাড়া শ্বশুর মাহাবুব আলম খোকন ও শাশুড়ি নাজনিন বেগমকে আসামি করা হয়েছে। আর নাম ও সংখ্যা উল্লেখ না করে সাখাওয়াতের ভাই-বোন, ভগ্নিপতিসহ শ্বশুর বাড়ির বেশ কয়েজনকে আসামি করা হয়েছ।

শাহ মখদুম থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) বণী ইসরাইলকে আত্মহত্যায় প্ররোচনার এই চাঞ্চল্যকর মামলাটি তদন্তের জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত কাউকে এ মামলায় গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে রংপুরের গাইবান্ধা জেলার নিজ গ্রামের পারিবারিক গোরস্থানে লিজার মরদেহ দাফন করা হয়েছে। এর আগে বুধবার দুপুরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যু হয়।

প্রসঙ্গত, ২৮ সেপ্টেম্বর রাতে তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢামেক হাসপাতালে নেওয়া হয়েছিল। শরীরের ৬৩ শতাংশ দগ্ধ হয়ে ঢামেকর বার্ন ইউনিটে কলেজছাত্রী লিজা এই টানা চার দিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করেন।

অক্টোবর ০৩, ২০১৯ at ২২:০৫:৩০ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আহা/আক/এমআর/কেএ