স্বামীর পরকীয়ায় প্রথম স্ত্রী নিঃস্ব

মুন্নি আক্তার (৩০) বিগত এগারো বছর আগে লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম করপাড়া ইউনিয়নের সবর আলী কাজী বাড়ীর মোঃ মফিজ উল্যার পুত্র শাহ্ আলমের সাথে পারিবারিক ভাবে বিবাহ্ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। বেশ সুখে-শান্তিতে কাটতে থাকে এই দম্পতির জীবন। তাদের সংসারে এক পুত্র (মেহেরাজ) ও এক কন্যা (লামিয়া) সন্তানের জন্ম হয়। হঠাৎ কালবৈশাখীর মত কাল হয়ে দাঁড়ায় একই ইউনিয়নের সপ্না আক্তার নামের আরেক নারী। শাহ্ আলমের সাথে পরকীয়া শুরু হয় সপ্না আক্তারের।

পরবর্তী সময়ে শাহ্ আলম স্ত্রী মুন্নি আক্তারের অনুমতি না নিয়ে বিয়েও করেন সপ্না আক্তারকে। মুন্নি আক্তারের পরিবারের নিকট থেকে টাকা নিয়ে বিদেশ (ওমান) পাঁড়ি জমান শাহ আলম। বর্তমানে দ্বিতীয় স্ত্রী সপ্নার প্ররোচনায় প্রথম স্ত্রীর খোঁজ-খবর নিচ্ছেন না শাহ্ আলম।

জানা যায়, সপ্না আক্তার শাহ্ আলমের কাছ থেকে অলিখিত ৫০ টাকা স্টাম্পে জোর করে স্বাক্ষর নিয়ে আদালতে মুন্নি আক্তার সহ পুরো পরিবারকে জড়িয়ে মামলা দায়ের করেন।

আরো পড়ুন:
চেয়ারম্যান প্রার্থীদের নির্ঘুম প্রচারণা
ঝিনাইদহে ৫ দফা দাবীতে সরকারী কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের স্মারকলিপি প্রদান

এ বিষয়ে প্রথম স্ত্রী মুন্নি কান্না ভরা কন্ঠে সাংবাদিকদের জানান, অসহায় হয়ে পড়েছেন তিনি। সপ্না আক্তার তাকে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দ্বারা হত্যা ও মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে দেবে বলে হুমকি দিচ্ছে।

এ বিষয়ে মুন্নি আক্তার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী (রামগঞ্জ) আদালত, লক্ষ্মীপুরে একটি মামলা দায়ের করেন। যার সি আর মামলা নং -২৭০ /১৯ তাং- ২৯/৯/১৯ইং।

এ ছাড়াও শাহ্ আলমের পিতা মফিজউল্যা নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছেন বিধায় তিনিও আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। শাহ্ আলমের কনিষ্ঠ ভাই মোরশেদ আলমও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (রামগঞ্জ) আদালত, লক্ষ্মীপুরে সপ্না আক্তার কে বিবাদী করে একটি মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং মিছ ১০৭/১৯।

সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৯ at ১৯:৩৩:২৯ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আহা/আক/মোআকা/এএএম